নীলফামারীতে পুলিশের পক্ষ থেকে মাস্ক ও ট্রাফিক লিফলেট বিতরণ

নীলফামারীতে পুলিশের পক্ষ থেকে মাস্ক ও ট্রাফিক লিফলেট বিতরণ

নীলফামারীতে পুলিশের পক্ষ থেকে মাস্ক ও ট্রাফিক লিফলেট বিতরণ

নীলফামারীতে করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় নিম্ন আয়ের মানুষসহ পথচারীদের মাঝে মাস্ক বিতরণ করছেন সদর থানা পুলিশের পরির্দশক মাহমুদ উন নবী। অপর দিকে মানুষের মাঝে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করছে ট্রাফিক পুলিশ।

বুধবার বিকালে জেলা শহরের চৌরঙ্গী মেড়ে ওই বিতরণ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোখলেছুর রহমান-বিপিএম,পিপিএম। এসময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এবিএম আতিকুর রহমান, মো. রুহুল আমীন, রবিউল ইসলাম, নীলফামারী সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মমিনুল ইসলাম, পরিদর্শক (তদন্ত) মাহমুদ উন নবী, ট্রাফিক পুলিশের পরিদর্শক মো. সেলিম আহমেদ, আজাদ হোসেন খান প্রমুখ। 

নীলফামারী সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাহমুদ উন নবী জানান, করোনা ভাইরাস সংক্রামন রোধে নিম্ন আয়ের মানুষ ও পথচারীদের মাস্ক বিতরণের উদ্যোগ গ্রহণ করি। আমার এই উদ্যোগে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন ৭১ টেলিভিশনের প্রতিনিধি বিজয় চক্রবর্তী কাজল, চ্যানেল নাইন প্রতিনিধি নূর আলম ও একুশে টেলিভিশন প্রতিনিধি ওয়ালি মাহমুদ সুমন। আমরা স্থানীয়ভাবে দুই হাজার  মাস্ক তৈরী  করি। এসব তৈরী করা মাস্ক  নিম্ন আয়ের মানুষসহ পথচারীদের মাঝে বিতরণ করা হচ্ছে। 

অপর দিকে প্রানঘাতি করোনা সংক্রামন রোধে মানুষের মাঝে সচেতনতা বাড়াতে শহরের বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে দাড়িয়ে পথচারীদের মাঝে লিফলেট বিতরণ করছে ট্রাফিক পুলিশ বিভাগ।

নীলফামারী ট্রাফিক পুলিশের পরির্দশক সেলিম আহমেদ জানান,‘প্রানঘাতি করোনা মোকাবেলায় সচতনতার বিকল্প নেই। প্রত্যেকটি মানুষ সচেতন হলেও করোনা মোকাবেলা সম্ভব। এজন্য আমরা পথচারীদের মাঝে লিফলেট বিতরণ করে তাদের সচেতন করার চেষ্টা করছি।’

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোকলেছুর রহমান (বিপিএম,পিপিএম) বলেন, ‘ব্যাক্তিগত সচেতনতার পাশাপাশি সমাজের বিত্তবানরা এগিয়ে এলে করোনা প্রাদুর্ভাব মোকাবেলায় বাংলাদেশ আরেক ধাপ এগিয়ে যাবে। এজন্য সমাজের দুই একজন সাধারণ মানুষের পাশাপাশি এগিয়ে আসতে হবে বিত্তবানদের। তবেই  করোনা মোকাবেলা করা সম্ভব হবে।’ 

 

পাঠকের মন্তব্য