রূপগঞ্জে শিক্ষার্থীদের করোনা প্রতিরোধে অভিনব কৌশল

রূপগঞ্জে শিক্ষার্থীদের করোনা প্রতিরোধে অভিনব কৌশল

রূপগঞ্জে শিক্ষার্থীদের করোনা প্রতিরোধে অভিনব কৌশল

নভেল করোনা ভাইরাসে কাঁপছে দেশ। এর চিকিৎসা ব্যবস্থা না থাকায় আতঙ্কে রয়েছে সারা বিশ্বের মানুষ। ইতিমধ্যে বাংলাদেশে ৩৯ জন আক্রান্ত এবং ৫জনের মারা যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে। কোয়ারেন্টাইনে আছে ২০ হাজারের অধিক। আর আক্রান্ত সন্দেহে রয়েছে হাজারের অধিক। তাই মানুষ স্বাস্থ্য সচেতনতায় নানামুখি কর্মসূচী নিয়েছেন। বাদ যায়নি শিশু কিশোরদের এ কর্মসূচী।

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের গুতিয়াবো ও মধূখালী রাস্তার মাঝখানে বাশ দিয়ে বেড়িকেট দিয়ে আটকে দিচ্ছেন পথচারীদের। শুধু তাই নয়, লোকাল যান অটোরিক্সা আটকে ভাইরাস মুক্ত করতে চাকায় জীবানুনাশক স্প্রে করে দিচ্ছে। আবার ওই যানবাহনে থাকা যাত্রীদের নামিয়ে হাত ধুইয়ে গ্রামে প্রবেশ করতে দিচ্ছেন। আর দুরত্ব বজায় রেখে মানুষজনকে সচেতন হতে পরামর্শ দিচ্ছেন। এমন চিত্র দেখে জনসাধারনের মাঝে শিশু কিশোর ও সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থীদের প্রতি বাড়ছে বিশেষ সমাদর। কথা হয় স্থানীয় বাসিন্দা রাসেল মোল্লার সঙ্গে। তিনি বলেন, এক বদলে যাওয়া বাংলাদেশ দেখলাম। আমরা মনে হচ্ছে আগে থেকে এমন পরিচ্ছন্ন জীবন যাপনে অভ্যস্থ হলে কোন ভাইরাস আমাদের ছুঁতে পারতো না।

 স্থানীয়রা  বলেন, শিক্ষার্থীরা কোয়ারেন্টাইন ছেড়ে যারা জরুরী প্রয়োজনে হাটে বাজারে যাচ্ছে, তাদের হাত ধুয়াসহ করোন বিষয়ে যে কর্মসূচী গ্রহণ করেছে তা বিরল। গুতিয়াবো এলাকার ব্যবসায়ী করিম হোসেন বলেন,শিশুদের জীবানুনাশক সাবান, স্প্রে সরবরাহ করে দিয়েছি। তারা গ্রামের প্রবেশ পথে যাতায়াতকারীদের বুঝিয়ে হাত ধুইয়ে দিচ্ছে। এতে মানুষ সচেতন হচ্ছে।এ বিষয়ে  রূপগঞ্জ সদর ইউপি ৩নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য মোরশেদ আলম বলেন, আমাদের গ্রামকে সুরক্ষা দিতে এ শিশুদের কর্মসূচী দেখার মতো। তবে তারা যেন দুরত্ব বজায় রাখে বা নিজেরাও যেন নিরাপদ থাকে তার জন্য দেখবাল করছি। এ সময় তিনি দাবী করেন, প্রতিটি গ্রামের প্রবেশ মুখে এমন ব্যবস্থা থাকলে মানুষ আরো সচেতন হবে। এদিকে শিশু কিশোরদের এ কর্মসূচী ছাড়াও রূপগঞ্জের সরকারী বেসরকারী প্রতিষ্ঠানেও নেয়া হয়েছে হাত ধুয়ে সংশ্লিষ্ট দপ্তরে প্রবেশের বাধ্যতামুলক নির্দেশনা।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কার্যালয়, রূপগঞ্জ থানা ও রূপগঞ্জ প্রেসক্লাব কার্যালয়সহ বিভিন্ন দপ্তরে এমন বাধ্যতামুলক হাত ধোয়া ব্যবস্থা কর্মসূচী রয়েছে।

এ বিসয়ে রূপগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পণা কর্মকর্তা ডাক্তার সাইদ আল মামুন বলেন, দেশে করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি পর্যবেক্ষন ও এ রোগে আক্রান্তদের জন্য সাধ্যমত কাঙ্খিত সেবার জন্য প্রস্তুত স্বাস্থ্য বিভাগ। তবে যেহেতু এর চিকিৎসা পদ্ধতি আবিস্কার হয়নি। এ থেকে বাঁচতে সকলের উচিত স্বেচ্চায় সামাজিক দুরত্ব তৈরী করা। হাত ধোয়াসহ পরিচ্ছন্ন জীবন যাপনের বিকল্প নাই।

এ প্রসঙ্গে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মমতাজ বেগম বলেন, সরকারী নির্দেশনা হলো বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নেয়া পদক্ষেপ বাস্তবায়ন। এমন পরিস্থিতি নিয়ে কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান যেন মানুষজনকে জিন্মি করতে না পারে তার জন্য নানা পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হচ্ছে। এ সময় স্থানীয়ভাবে সকল শ্রেণি পেশার লোকজন তারা নিজেরা নিজেদের পরিচ্ছন্নতা ও জীবানুমুক্ত করন নিশ্চিত করে সুন্দর জীবন যাপন করার আহবান জানান তিনি।

পাঠকের মন্তব্য