রাতের আঁধারে ত্রান সামগ্রী বিতরণ সোনারগাঁ নির্বাহী কর্মকর্তার 

রাতের আঁধারে ত্রান সামগ্রী বিতরণ সোনারগাঁ নির্বাহী কর্মকর্তার 

রাতের আঁধারে ত্রান সামগ্রী বিতরণ সোনারগাঁ নির্বাহী কর্মকর্তার 

নভেল করোনাভাইরাসের থাবায় থমকে গেছে গোটা পৃথিবী। বাংলাদেশেও হানা দিয়েছে এ প্রাণঘাতী ভাইরাস।

উল্লেখ্য, করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সাধারণ ছুটিতে পুরো দেশ। আতংক, উদ্বেগ আর উৎকন্ঠার মধ্যে দিন কাটাচ্ছে ঘরবন্দি মানুষ। এমতাবস্থায় না খেয়ে যাতে কোন দুঃস্থ ও অসহায় লোক মারা না যায় সেই ব্যাপারে জরুরিভাবে প্রদক্ষেপ গ্রহণ করেছে সরকার।

প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ত্রান তহবিল থেকে বরাদ্ধ দেওয়া চাল, ডাল, আলু ও লবনসহ বিভিন্ন নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য সামগ্রী বিতরণ শুরু করছেন বিভিন্ন জেলা ও উপজেলায় কর্মরত সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। তবে, প্রধানমন্ত্রীর ত্রান তহবিল থেকে পাঠানো এসব ত্রান সামগ্রী বিতরণে একটু ভিন্ন পন্থা অবলম্বন করছেন নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সাইদুল ইসলাম।

করোনাভাইরাস থেকে সুরক্ষিত রাখতে রাতের আধারে তিনি গ্রামে গ্রামে ঘুরে ঘুরে নিজেই হতদরিদ্র, অসহায় ও দুঃস্থ পরিবার খুঁজে বের করে করে ওইসব ত্রান সামগ্রী বিতরণ করছেন। রোববার রাতভর তিনি সোনারগাঁ পৌরসভার খাসনগর দীঘিরপাড় গ্রাম ও বিভিন্ন পাড়া-মহল্লায় এসব ত্রান সামগ্রী বিতরণ করেন। এসময় তার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন সোনারগাঁ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আল মামুন।

এ বিষয়ে সোনারগাঁ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সাইদুল ইসলাম জানান, প্রধানমন্ত্রীর পাঠানো ত্রান সামগ্রী উপজেলার সর্বত্র পৌছাতে তিনি রাত-দিন নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।

প্রধানমন্ত্রীর গৃহীত প্রদক্ষেপ, করোনার কারণে গৃহবন্দি থেকে কোন লোক যাতে না খেয়ে মারা না যায় সেটি নিশ্চিত করতে রাতের আধারে ঘরে ঘরে তিনি নিজেই ত্রান সামগ্রী নিয়ে হাজির হচ্ছেন। এ সময় তিনি আরও জানান, রাতের বেলায় ত্রান সামগ্রী নিয়ে উপস্থিত হলে অহেতুক মানুষের উপস্থিতি তেমন একটা থাকে না। তালিকা অনুযায়ী হতদরিদ্র, অসহায় ও দুঃস্থ পরিবার খুঁজে বের করে করে ত্রান সামগ্রী সুন্দর ও সুশৃংখলভাবে বিতরণ করা যায়।

তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রীর প্রেরিত ত্রাণ সামগ্রী বিতরণে যাতে কোন প্রকার অনিয়ম না হয় সেজন্য তিনি প্রতিদিন নিজেই গ্রামে গ্রামে যাবেন ও তদন্ত করে সঠিক ব্যক্তির হাতে ত্রাণ সামগ্রী তুলে দিবেন।

পাঠকের মন্তব্য