লকডাউনে মন ভাল নেই, ক্রিকেটার লিটন দাসের 

লকডাউনে মন ভাল নেই, ক্রিকেটার লিটন দাসের 

লকডাউনে মন ভাল নেই, ক্রিকেটার লিটন দাসের 

করোনার জেরে গোটা বিশ্বের মানুষ এখন তাঁদের স্বাভাবিক কাজকর্ম থেকে দূরে। ক্রীড়াবিদরাও খেলাধুলো থেকে দূরে রয়েছেন। ঘরবন্দি হয়েই জীবন কাটছে তাঁদের। অনেকেরই খেলাধুলো থেকে দূরে থাকার জন্য মন ভাল নেই। বাংলাদেশের ক্রিকেটার লিটন দাস জানিয়েছেন, এই ঘরবন্দি জীবন তাঁর কাছে জেলে থাকার সমান। লকডাউনের জেরে নিজেকে এখন কয়েদি মনে করছেন লিটন। পাশাপাশি এও জানিয়েছেন, সারা বিশ্ব এখন করোনা ভাইরাসের সঙ্গে লড়াই করছে। তাই ক্রিকেট প্রায় ভুলতে বসেছেন তিনি। শুধু ভাবছেন করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধে কীভাবে জেতা যায়।

একটি সংবাদমাধ্যমকে তিনি জানিয়েছেন, সাংবাদিকরা তো তাও বাড়ি থেকে বের হচ্ছে। কিন্তু তাঁর পরিস্থিতিটা শোচনীয়। নিজেকে জেলবন্দি মনে হচ্ছে তাঁর। বলেছেন, ‘আমার পরিস্থিতিটা বুঝতে পারছেন না। মনে হচ্ছে যেন জেলের কয়েদি আমি।’ কীভাবে গোটা বিশ্বে করোনা ভাইরাসের জন্য মানুষের স্বাভাবিক কাজকর্ম থেকে দূরে রয়েছেন এবং ক্রিকেট থেকে দূরে থাকার জন্য তাঁর উপর কী প্রভাব পড়ছে সে কথা জানিয়েছেন তিনি। লিটন জানিয়েছেন, ‘এখন ক্রিকেট নিয়ে ভাবলে চলবে না। গোটা দুনিয়া এখন বিপদের মুখে। যদি আমরা বেঁচে থাকি তাহলে খেলাদুলো-সহ সব কিছু করতে পারব আমরা। কিন্তু এখন ক্রিকেট নিয়ে আমি ভাবছি না।’

গত ২৭ মার্চ, লিটনের স্ত্রী দেবশ্রী বিশ্বাস সঞ্চিতা রান্নাঘরে চা তৈরির সময় গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণের জেরে তাঁর ডান হাত এবং চুলের কিছুটা অংশ পুড়ে যায়। বড়সড় দুর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষা পান সদ্য বিবাহিত লিটনের স্ত্রী। সেটা নিয়ে বেশ দুশ্চিন্তায় ছিলেন লিটন। তবে এখন সুস্থ হয়ে উঠছে সঞ্চিতা। লকডাউনের অনেক আগে জিম্বাবোয়ের বিরুদ্ধে ওয়ানডে সিরিজে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করেন দেশের ব্যাটসম্যান। দেশের ক্রিকেট ইতিহাসে ওয়ানডে-তে সর্বোচ্চ রানের ইংনিস খেলেন তিনি। সেই সুখের স্মৃতিতেই এখন মজে রয়েছেন লিটন।

পাঠকের মন্তব্য