নিরলস কাজ করছে আ'লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ উপকমিটি 

নিরলস কাজ করছে আ'লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ উপকমিটি 

নিরলস কাজ করছে আ'লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ উপকমিটি 

করোনা সংকট উত্তরণে সাংগঠনিকভাবে সমন্বিত কার্যক্রম পরিচালনা করছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। দলীয় সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে দলের সর্বস্তরের নেতাকর্মী।

বিতরণ করা হচ্ছে করোনাভাইরাস প্রতিরোধসামগ্রী ও খাদ্যসহায়তা।জনগণের স্বাস্থ্যসেবা সহজলভ্য করতে চালু করা হয়েছে হটলাইন (০৯৬৭৮৮৮৯৮৮৮)। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এমপির নির্দেশনায় এবং ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দীর তত্ত্বাবধানে ধানমন্ডিস্থ দলীয় সভাপতির কার্যালয় থেকে এ কার্যক্রম পরিচালনা করছেন ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ উপকমিটির সদস্যরা।

করোনা মোকাবিলায় সাংগঠনিক তৎপরতা

১। প্রতিটি জেলায় ৩০২৪ পিস বিশেষ ধরনের এন্টিসেপটিক সাবান, দলীয় কার্যালয়ে ব্যবহারের জন্য ২০টি ১০০ এম এল এর উন্নতমানের হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও ১০০ টি সার্জিকাল মাস্ক বিতরণ করা হয়। এছাড়াও উপজেলাসমূহে ১৪৪০টি করে বিশেষ ধরনের এন্টিসেপটিক সাবান, দলীয় কার্যালয়ে ব্যবহারের জন্য ১৫টি ১০০ এমএলএ'র উন্নতমানের হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও ৫০টি সার্জিকাল মাস্ক বিতরণ করা হয়।

২। এ পর্যন্ত ৫৫ জেলা, ২৬টি উপজেলা, ভাতৃপ্রতিম ৮টি সংগঠন, ৩১টি সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠনের মাঝে এ সকল সামগ্রী বিতরণ করা হয়। এছাড়াও ১১টি চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানে পিপিই, ৪টি প্রতিষ্ঠানে ইনফ্রারেড থার্মোমিটার এবং টুঙ্গীপাড়া, কোটলিপাড়া ও গোপালগঞ্জ সদরে শুকনো খাবার বিতরণ করা হয়।

৩। এ পর্যন্ত ৫০ সহস্রাধিক মাস্ক, দশ সহস্রাধিক ১০০ এমএলএ'র উন্নতমানের হ্যান্ড স্যানিটাইজার, পাঁচ লক্ষাধিক পিছ বিশেষ ধরনের ক্যামিক্যালযুক্ত এন্টিসেপটিক সাবান বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়াও প্রায় ১৫০০ পিপিই, শতাধিক ইনফ্রারেড থার্মোমিটার বিতরণ করা হয়েছে।

৪। প্রথম দফায় খাদ্যসামগ্রীর মধ্যে ছিল ১০ কেজি চাল, ২ কেজি আটা, ২ লিটার সোয়াবিন তেল, ২ কেজি আলু, ১ কেজি ছোলাবুট, ১ কেজি লবন, ১ কেজি মুসুরি ডাল, বিশেষ ধরনের এন্টিসেপটিক সাবান ৩ পিছ। প্রায় ১৫০০ পরিবারের মাঝে এ খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়।

৫। দ্বিতীয় দফায় খাদ্যসামগ্রীর মধ্যে ছিল ৫ কেজি চাল, ১ লিটার সোয়াবিন তেল, ২ কেজি আলু, ১ কেজি ছোলাবুট, ১ কেজি লবন, ১ কেজি মুসুরি ডাল, বিশেষ ধরনের এন্টিসেপটিক সাবান ৩ পিছ। প্রায় ২২০০ পরিবারের মাঝে এ খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

৬। এ পর্যন্ত ১৫ হাজারেরও বেশী পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

৭। খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা উল্লেখযোগ্য সংগঠনসমুহের মধ্যে রয়েছে : কেন্দ্রীয় ১৪ দলভুক্ত গণতন্ত্রী পার্টি, গণআজাদী লীগ, জাতীয় পার্টি, বাসদ, ন্যাপ; বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগ, বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ, জাতীয় শ্রমিক লীগ, আমরা ঢাকাবাসী এবং বাংলাদেশের বিভিন্ন পর্যায়ের আলেম-ওলামাবৃন্দ। এ ছাড়াও ব্যক্তির চাহিদার প্রেক্ষিতে পরিচয় গোপন রেখে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ চলছে।

৮। এছাড়াও সামাজিক কল্যাণের অংশ হিসেবে করোনা ভাইরাস সংকটকালীন সময়ে মানুষের সার্বক্ষনিক চিকিৎসাসুবিধা নিশ্চিতে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। স্বাস্থ্যসেবা সাধারণের মাঝে সহজলভ্য করার লক্ষ্যে ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ উপ-কমিটির উদ্যোগে হটলাইন চালু করা হয়েছে যার নম্বর ০৯৬৭৮৮৮৯৮৮৮।

স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. রোকেয়া সুলতানা এবং ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দীর যৌথ তত্ত্বাবধানে প্রায় ৮০ জন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের সমন্বয়ে চালুকৃত চিকিৎসাসেবা কার্যক্রমের সুফল ভোড় করছে উল্লেখযোগ্যসংখ্যক মানুষ।এই সেবা সম্প্রসারণ ও সমৃদ্ধ করার লক্ষ্যে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপ-উপাচার্য বিশিষ্ট চক্ষু বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. শারফুদ্দিন আহমেদ, ইনস্টিটিউট অভ নিওরো সায়েন্স এন্ড হাসপাতালের নিউরো মেডিসিন বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. কাজী মহিবুর রহমান ও জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটের ডা. কাজল কুমার কর্মকার উপদেষ্টা হিসেবে সংযুক্ত হয়েছেন।

পাঠকের মন্তব্য