কবি ইব্রাহিম হোসেন এর একগুচ্ছ কবিতা   

কবি ইব্রাহিম হোসেন এর একগুচ্ছ কবিতা 

কবি ইব্রাহিম হোসেন এর একগুচ্ছ কবিতা 

কবি ইব্রাহিম হোসেন এর একগুচ্ছ কবিতা   

মধ্যবিত্ত   

এ কেমন গজব এলো বিশ্ব ভূবনে ?
দুঃখীর দুঃখের শেষ নাই পেটের কারণে।

ধনীর আছে গাড়ি বাড়ি, আছে অনেক টাকা;
মধ্যবিত্ত সংকটে পকেট তাদের ফাঁকা। 

দিন ভিখারী কোন মতে চলে ঘুরে ফিরে,
ধনীর কিছু অণ্যদানে পেটটা তাদের ভরে।

মধ্যবিত্ত করুন স্বরে খোদার সমীপে,
কান্নাভেজা কণ্ঠে বলে আহার দিবে কে ?

দাওনা প্রভু দয়া করে কিছু মোদের তুমি,
আর সয়না ক্ষুধার জ্বালা শূণ্য মরু ভূমি।  

যায়না বলা কারো কাছে মনের কথা কভু,
মধ্যবিত্ত হয়ে ভবে অপরাধী শুধু।

বলতে গেলে কারো কাছে পেটের ক্ষুধার জ্বালা,
অট্ট হেসে টিটকারিতে বলে আছোই ভালা। 

দিন ভিখারীর দিকে আছে ধনীর বড় হাত,
মধ্যবিত্ত সংসারে আমরা কুপোকাত।

কষ্ট মোদের দেখেনা তো এই ভূবনে কেহ,
কষ্ট জ্বালা কুরে খায় মধ্যবিত্ত দেহ।

মেঘ-বৃষ্টি-মেঘ   

মেঘের ডাকে বৃষ্টি পড়ে, বৃষ্টি পড়ে টাপুর টুপুর;
মন ভেসে যায়, যায় না বুঝা, হয় যে কখন সকাল দুপুর ?

মেঘে মেঘে আকাশ ঢাকা, মেঘ যে ডাকে গুড়ুম গুড়ুম,
বিজরী যখন চমকে উঠে, চমকে উঠে হৃদয় ও মন।

মাঠে-ঘাটে গরু-ছাগল হাম্বা, ভ্যা, ভ্যা করে ;
রাখাল মনিব যায় ছুটে যায় ঘরে নেবার তরে।

কৃষক, কৃষাণ যায় ছুটে যায় কোদাল নিয়ে হাতে,
পানি যেন না চলে যায় আইল বাঁধা ক্ষেতে।

ছোট ছোট পোলা পানের উপছে পড়ে ভিড়, 
বৃষ্টিতে ভিজতে যায় চল্ না নদীর তীর।

বৃষ্টি ভেজা অঙ্গ নিয়ে ঘোমটা দিয়ে বৌ,
দেবর,ননদ সাথে নিয়ে তোলে নদীর ঢেউ।

এক নাগাড়ে হপ্তা ধরে  বৃষ্টি যখন হয়,
দুঃখের কোন শেষ থাকে না, হয়রে জীবন ক্ষয়।

গরিব-দুঃখী কেঁদে মরে, কেঁদে মরে ঘরে;
কাজ না থাকায় খাবার নাই পেটে দেবার তরে।

ক্ষেতের ফসল নষ্ট করে মেঘ, বৃষ্টি, ঝড়ে,
ঘর-বাড়ি, ক্ষেতের জমি ডুবে বন্যা ধারার তরে।

অনেক বেশি মেঘ, বৃষ্টি ক্ষতি সাধন করে,  
অল্প অল্প যখন হয় মন খুশিতে ভরে।

অনেক অনেক ভালো লাগে মেঘ বৃষ্টি মেঘ,
বিজলী চমকে ছুটে যখন দেখায় গতি বেগ।

ভালো মানুষ  

মৃত্যু নামের একটি পাখি আসবে সবার কাছে,
একটু ভেবে দেখরে মন দুনিয়ার সবই মিছে। 

অর্থ আছে, টাকা আছে, আছে রূপ-যৌবন, 
সরাইখানার দুনিয়াতে বিলাসিত কেন মন ?

কেমনে হবে মৃত্যু তোমার কেউ জানেনা না কভু,
গর্বকারী জীবন হবে বৃথা তোমার শুধু।

গর্বভরে চলার পরে মৃত্যু যখন হবে,
সব লোকেরই নয়ন মাঝে তোমার স্মৃতি রবে।

বলবে সবাই লোকটা ছিল অনেক খারাপ মনের,
দুঃখ দিত সবার মনে ঝরতো আঁখি নয়নের। 

সৎ সততার সাথে যদি জীবন গড়ো ভবে,
যেমনে মরো তোমার তরে সবার দোয়া রবে।  

মরণ টাকে স্মরণ করে সামনে চলো সবে,
জীবন থেকে পাপরাশি মুছে সবই যাবে।

গর্ব বড়াই বিনাশ হবে ধন্য হবে জীবন,
এই ভুবনের সব লোকই তো হবে তোমার আপন।

তোমার মৃত্যু পরে দুহাত তুলে বলবে তবে সবে, স্বর্গবাসী করো প্রভু ঐ লোকেরই আগে ।
  
যুগে যুগে এমন লোকই পাঠিয়ে দিও তুমি,
যার কারণে আলোকিত হবে বিশ্ব ভূমি ।

পাঠকের মন্তব্য