১৫০০ রিকশাচালকে খাদ্য সহায়তায় কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা 

১৫০০ রিকশাচালকে খাদ্য সহায়তায় কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা 

১৫০০ রিকশাচালকে খাদ্য সহায়তায় কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা 

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা’র নির্দেশে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস্ পরশ ও সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মো: মাইনুল হোসেন খান নিখিল এর আহবানে কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা ইঞ্জিনিয়ার মুক্তার হোসেন চৌধুরী কামাল লক্ষ্মীপুর জেলায় প্রায় ১৫০০ কর্মহীন রিকশাচালকদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার বিতরণ করলেন।

আজ (২১ মে, ২০২০) সকাল ১১ টা লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলাধীন দালাল বাজার ফাতেমা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে উপহার সামগ্রী বিতরণ করা হয়। এসময় সামাজিক দূরত্ব ও করোনা সর্তকতা অবলম্বন করা হয়। উপহার সামগ্রী বিতরণের সময় রিকশাচালকদের মাঝে কোভিড-১৯ ভাইরাস সংক্রান্ত সচেতনতামূলক প্রশিক্ষণও দেওয়া হয়।

বয়োবৃদ্ধ রিকশাচালক আজহারুল ইসলাম আপ্লুত কণ্ঠে বলেন, “আমাগো শেখ হাসিনাকে আল্লাহ বাঁচাক”।

কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা ইঞ্জিনিয়ার মুক্তার হোসেন চৌধুরী কামাল বলেন, “মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যেভাবে সংকট মোকাবেলা করছেন এমন নজির বিশ্বের কোথায়ও নেই। প্রধানমন্ত্রী নির্দেশে যুবলীগ সর্বদা দেশের সেবায় নিয়োজিত ছিল এবং থাকবে”।

প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে কর্মহীন রিকশাচালকদের মাঝে উপহার সামগ্রী বিতরণের এমন ব্যতিক্রমধর্মী আয়োজনে সার্বিক সহযোগিতা করেছেন কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা এডভোকেট জয়নাল আবেদীন চৌধুরী রিগ্যান, যুবলীগ নেতা মোজাম্মেল হোসেন মিশু, লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলা (পূর্ব) যুবলীগ এর যুগ্ম-আহবায়ক রুপম হাওলাদার, ৩নং দালাল বাজার ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ফয়েজ আহাম্মদ। যুবলীগ নেতা নজরুল ইসলাম রাজু, ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি সুমন হোসেন বাদশা, সাধারণ সম্পাদক শেখ মুরাদ, ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের সম্পাদক মণ্ডলীর সদস্য সাইফুল ইসলাম সাকিব, যুবলীগ নেতা নূর আলম কবির শিপন, বাবুল পাটওয়ারী এবং ইঞ্জি: হাসান মাহমুদ আলিফ।

বাংলাদেশে করোনা ভাইরাসের প্রকোপ শুরু হওয়ার পর থেকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার নির্দেশে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস্ পরশ ও সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মো: মাইনুল হোসেন খান নিখিল এর আহবানে প্রথমে দেশব্যাপী নাগরিক সচেতনতায় কাজ শুরু করে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের প্রতিটি ইউনিট। প্রথমে হ্যান্ড স্যানিটাইজার, সাবান ও মাস্ক বিতরণ করে যুবলীগের সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা। পরবর্তীতে লক ডাউন শুরু হওয়ার পর থেকে কর্মহীন, ছিন্নমূল, অসহায় মানুষের খাদ্য সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে সংগঠনের প্রতিটি ইউনিটের নেতাকর্মীরা। পাশাপাশি ফ্রি অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস, ফ্রি সবজি দোকান, ইফতার সরবরাহ, রান্না করা খাবার সরবরাহ, করোনা মৃতদেহ দাফন এবং ফ্রি টেলি মেডিসিন সেবা চালু করেছে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ।

পাঠকের মন্তব্য