ঈদের মসজিদ প্রস্তুত, ঠেকানো যাবে কি করোনার বিস্তার ? 

ঈদের মসজিদ প্রস্তুত, ঠেকানো যাবে কি করোনার বিস্তার ? 

ঈদের মসজিদ প্রস্তুত, ঠেকানো যাবে কি করোনার বিস্তার ? 

করোনাকে সামনে রেখে ভিন্ন মাত্রায় এবার দেশে ঈদুল ফিতরের প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে৷ ঈদের জামায়াতের সামাজিক দূরত্ব নিয়ে আছে এক ধরনের শঙ্কা৷ অন্যদিকে ঢাকা থেকে গ্রামে যাওয়া মানুষ করোনা বিস্তারে ভূমিকা রাখতে পারে৷

দেশে এবার কোথাও খোলা মাঠ বা ঈদগায়ে ঈদের নামাজ না পড়ার নির্দেশনা আছে৷ তাই কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ায় এই প্রথমবারের মত দেশের বৃহত্তম ঈদের জামাত হচ্ছে না৷ শোলাকিয়ার এই ঐতিহ্যবাহী জামাতে শুধু বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে নয়, বাইরের দেশ থেকেও মুসলমানরা যোগ দিতেন৷ চার-পাঁচ লাখ লোক নামাজ আদায় করতেন একসাথে৷ ১৯২ বছর ধরে এখানে ঈদ জামাত হয়ে আসছে৷ চলতি বছর ১৯৩ তম জামাত অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল৷ 

শোলাকিয়ার ইমাম মাওলানা ফরিদউদ্দিন মাসউদ জানান, সরকারের উচ্চ পর্যায়ের সিদ্ধান্তে এবার ঈদের জামাত বন্ধ করা হয়েছে৷ কারণ করোনায় যে সামাজিক দূরত্ব রাখা দরকার সেটা এখানে এত লোকের মধ্যে সম্ভব নয়৷ তিনি বলেন, শোলাকিয়ায় ঈদের জামাত শুরুর পর থেকে এই প্রথম বন্ধ রাখা হলো৷ আগে কোনো পরিস্থিতিতে জামাত বন্ধ হয়নি৷

শোলাকিয়ায় এই প্রথম ঈদ জামাত বন্ধ রাখা হলো

ফরিদউদ্দিন মাসউদ এখন ঢাকায় আছেন৷ ঈদের দিনও থাকবেন৷ এবার তিনি ঈদের নামাজ পড়াবেন রাজারবাগে পুলিশের কেন্দ্রীয় মসজিদে৷ তিনি বলেন, খোলা মাঠে ঈদের নামাজ পড়ার আলাদা গুরুত্ব আছে, সওয়াব বেশি হয়৷ কিন্তু পরিস্থিতির কারণে এবার তা করা যাচ্ছে না৷ এতে ইসলামের বিধানের কোনো ব্যত্যয় ঘটছে না৷

মসজিদগুলো কী ব্যবস্থা নিচ্ছে ?

মসজিদগুলোতে যাতে সামাজিক দূরত্ব মেনে ঈদের নামাজ হয় তার প্রস্তুতি চলছে৷ প্রধান ঈদের জামায়াত হবে ঢাকায় বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে৷ রোববার সকালে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের প্রস্তুতি পরিদর্শন করেছেন৷ মসজিদের পরিচালক ও ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মসজিদ বিভাগের পরিচালক মুহাম্মদ মহীউদ্দিন মজুমদার বলেন, আমরা সামাজিক দূরত্ব মেনেই নামাজের প্রস্তুতি নিয়েছি৷ তিন ফুট দূরত্ব ও এক কাতার বাদ দিয়েই নামাজ হবে৷ সবাইকে মাস্ক ও হ্যান্ড গ্লাভস ব্যাবহার করতে বলেছি৷ সকাল ৮টা থেকে পাঁচটি জামাত হবে৷ এরপর প্রয়োজন হলে আরো একটি জামাত করা হবে৷

তিনি জানান, বিগত জুমাগুলোতেও তারা একই ধরনের সামাজিক দূরত্ব মেনে নামাজ আদায় করেছেন৷ আগে মসজিদের ম্যাট সরিয়ে দেয়া হয়েছে৷ জীবানুনাশক দিয়ে মসজিদ জীবানুমুক্ত করা হয়েছে৷ মসজিদের গেটে বসানো হাত ধোয়ার বেসিন৷ রাখা আছে সাবান ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার৷ পাশাপাশি যারা ঈদের নামাজ পড়তে আসবেন তাদেরকে বাসা থেকে ওযু করে আসতে বলা হয়েছে৷ মহীউদ্দিন মজুমদার বলেন, আমরা এটা বার বার ঘোষণা দিচ্ছি৷ আর ঈদের দিন যাতে শৃঙ্খলা এবং সামজিক দূরত্ব থাকে সেজন্য পুলিশের সহায়তা চেয়েছি৷

পাঠকের মন্তব্য