একাত্তরের মৃত্যুঞ্জয়ী বীর কার্টুনিষ্ট নজরুল ইসলাম আর নেই 

একাত্তরের মৃত্যুঞ্জয়ী কার্টুনিষ্ট নজরুল ইসলাম আর নেই 

একাত্তরের মৃত্যুঞ্জয়ী কার্টুনিষ্ট নজরুল ইসলাম আর নেই 

একাত্তরের মৃত্যুঞ্জয়ী বীর আজ জীবনের কাছে পরাভুত। চলে গেলেন শিল্পী নজরুল ইসলাম। তিনি কার্টুনিষ্ট নজরুল নামেই সর্বাধিক পরিচিত।

১৯৭১-এর ২৫শে মার্চ কালরাত্রিতে তিনি আর চারুকলার আরেক ছাত্র শহীদ শাহনেওয়াজ অবস্থান করছিলেন নিউমার্কেটের পাশে আর্ট কলেজ হোস্টেলে, পরে যার নামাকরণ হয় ‘শহীদ শাহনেওয়াজ ছাত্রাবাস’। সামনের রাস্তাটাই ছিল ২৫শে মার্চের প্রধান রনাঙ্গণ। ছাত্রাবাসের সামনেই পজিশন নিয়ে আর্টিলারি আর্মার্ড কার গুলো আক্রমণ করে বিজিবি (তৎকালিন ইপিয়ার) হেড কোয়্ররটারে।

ভোরে একদল সৈন্য প্রবেশ করে ছাত্রাবাসে। শাহনেওয়াজ, নজরুল ইসলাম আর এক অপরিচিত আশ্রিত লোককে তারা খুঁজে পায় হোস্টেলের একটি রুমে। তারা অনেক কষ্টে সৈন্যদের বুঝায় যে তারা নিরীহ শিল্পী। শিল্পী শুনেই খেপে উঠে পাক হানাদারেরা, বলে-ঐ শহীদ মিনারে টাঙ্গানো ছবিগুলো তাহলে তোমরা এঁকেছ? এই বলেই শুরু করে নির্বিচারে গুলি।

নজরুল ইসলামের বুকে ও পেটে তিনটি বুলেট বিদ্ধ হয়। শাহনেওয়াজ আর সেই অপরিচিত ব্যক্তির শরীর ছিন্নভিন্ন হয়ে যায়, তারা দুইজন সাথে সাথেই মৃত্য বরণ করেন। কিন্তু আশ্চর্যজনক ভাবে বেঁচে থাকেন নজরুল। রক্তক্ষরণে মৃতপ্রায় হয়ে সারাদিন পরে থাকেন ঘরের মেঝেতে। সন্ধ্যায় পিছনের বস্তি থেকে কিছু লোক এসে তাঁকে তুলে নিয়ে হাসপাতালে পৌঁছে দেয়। বেঁচে থাকেন তিনি।

কিন্তু এর পর কখনই তিনি আর পুরো সুস্থ থাকেননি। আজীবন কেটেছে অসুস্থতা নিয়ে। মানসিক ভাবেও খুব সুস্থ থাকেননি। গত কয়েকমাস পুরো সজ্জাশায়ি থেকে আজ ভোরে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

বাংলাদেশ চারুশিল্পী সংসদ দেশের সকল শিল্পীদের পক্ষ থেকে তাঁর মৃত্যুতে গভীর শোক ও শ্রদ্ধা জানিয়েছেন।

পাঠকের মন্তব্য