বঙ্গোপসাগরে ঝড়ের কবলে ট্রলারের মাঝি মোস্তাক নিখোঁজ

বঙ্গোপসাগরে ঝড়ের কবলে ট্রলারের মাঝি মোস্তাক নিখোঁজ

বঙ্গোপসাগরে ঝড়ের কবলে ট্রলারের মাঝি মোস্তাক নিখোঁজ

ঝড়ের কবলে পড়ে নৌদূর্ঘটনায় বঙ্গোপসাগরে নিখোঁজ হয়েছে মোস্তাক আহমদ (৫০) নামের এক মাঝি।

বুধবার (২৭ মে) সকাল ১০টায় কুতুবদিয়া উপকূলের বড়ঘোপ স্টীমারঘাট হতে নিত্যপ্রয়োজনীয় মালামাল পরিবহণের উদ্দেশ্যে চট্টগ্রাম যাচ্ছিল। কুতুবদিয়া চ্যানেল পাড়ি দিয়ে বাঁশখালী উপকূলের অদূরে বঙ্গোপসাগরে পৌছলে মালবাহি ট্রলার এম,বি মিজান ঝড়ের কবলে পড়ে।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ট্রলারের মাল্লা সাহেদ বলেন, সাগরে ঝড়ো হাওয়া শুরু হলে এ সময় ট্রলারের মাঝি মোস্তাক আহমদ (৫০) মাল্লা শওকতুল ইসলাম সাগরে পড়ে যায়। ট্রলারের অন্যান্য মাল্লারা খোঁজাখুজি করে শওকতুল ইসলামকে সাগর থেকে উদ্ধার করতে সক্ষম হলেও মাঝি মোস্তাক আহমদকে পায়নি।

নিখোঁজ মোস্তাক আহমদ বড়ঘোপ ইউনিয়নের মনোহরখালী গ্রামের নুরুল আলমের ছেলে। এ ব্যাপারে ট্রলার মালিক জিয়াউল হক মিজান ২৭ মে কুতুবদিয়া থানায় ১০০৫ নং সাধারণ ডায়েরী করেন। কুতুবদিয়া থানার ডিউটি অফিসার এএসআই আলমগীর সাধারণ ডায়েরীর বিষয়টি নিশ্চিত করেন। 

ট্রলার মালিক মিজান জানান, দীর্ঘদিন ধরে নিখোঁজ মোস্তাক আহমদ এম,বি মিজান মালবাহি ট্রলারের মাঝি হিসেবে নিয়োজিত আছেন। ঝড়ের কবলে পড়ে দূর্ঘটনা ঘটে।

কুতুবদিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট আলহাজ ফরিদুল ইসলাম চৌধূরী বলেন, নিখোঁজ মাঝি মোস্তাক আহমদের আত্নীয়স্বজনসহ উদ্ধারের জন্য তিনটি ট্রলার সাগরে পাঠানো হয়েছে। এ রির্পোট লিখা পর্যন্ত নিখোঁজ মাঝি মোস্তাক আহমদের সন্ধান পাওয়া যায়নি।

পাঠকের মন্তব্য