বর্ষার প্রভাবে মাসজুড়ে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি বৃষ্টিপাতের আশঙ্কা

বর্ষার প্রভাবে মাসজুড়ে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি বৃষ্টিপাতের আশঙ্কা

বর্ষার প্রভাবে মাসজুড়ে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি বৃষ্টিপাতের আশঙ্কা

বর্ষার প্রভাবে মাসজুড়ে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি বৃষ্টিপাতের আশঙ্কা করছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। প্রতিষ্ঠানটি বলছে, বর্ষার মৌসুম  শুরু হয়ে গেছে।  মৌসুমের প্রভাব চট্টগ্রাম, বরিশাল, সিলেট ও ঢাকার পূর্বপাশে অবস্থান করছে। ধীরে ধীরে এটি সারা দেশে ছড়িয়ে পড়বে।  এক্ষেত্রে আরও দুই থেকে চারদিন সময় লাগতে পারে।

বৃহস্পতিবার (১১ জুন) আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ আফতাব উদ্দীন বলেন, ‘কালবৈশাখী ঝড়ের সময় শেষ হয়ে গেছে।  ফলে আগামী বছরের আগে আপাতত ঝড়ের কোনো সম্ভাবনা দেখছি না। তবে এখন যে স্বাভাবিক বৃষ্টিপাত হচ্ছে সেটি আগামী আরও দুই দিন চলবে।  রোববার (১৪ জুন) রাত থেকে বৃষ্টির পরিমাণ বাড়বে। ’

আবহাওয়া অধিদপ্তর সূত্র জানিয়েছে, রংপুর, রাজশাহী বিভাগ ছাড়া গত তিন দিনে গড়ে দেশের সব জায়গায় ২০ মিলিমিটারের বেশি বৃষ্টিপাত হয়েছে।

আফতাব উদ্দীন বলেন, দেশে যে তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছিল তা ক্রমশ হ্রাস পাচ্ছে। এতে ধীরে ধীরে তাপমাত্রা কমে যাবে।  তবে প্রাথমিক অবস্থায় দেশের কিছু কিছু জায়গায় ভ‌্যাপসা গরম অনুভূত হতে পারে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে জানানো হয়েছে, ‘চলতি মাসে মৌসুমি ভারী বৃষ্টিপাতজনিত কারণে দেশের উত্তরাঞ্চল, উত্তর পূর্বাঞ্চল এবং দক্ষিণ পূর্বাঞ্চলে স্বল্পমেয়াদি বন‌্যার সৃষ্টি হতে পারে।’

এদিকে, পূর্বমধ‌্য বঙ্গোপসাগর এবং তৎসংলগ্ন পশ্চিমমধ‌্য বঙ্গোপসাগর এলাকায় একটি লঘুচাপ অবস্থান করায় তৎসংলগ্ন এলাকায় গভীর সঞ্চালনশীল মেঘমালা তৈরি হচ্ছে এবং বায়ুচাপের তারতম‌্যের আধিক‌্য বিরাজ করছে। এ কারণে উত্তর বঙ্গোপসাগর, বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকা এবং সমুদ্রবন্দরগুলোর ওপর দিয়ে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এজন‌্য চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা এবং পায়রা সমুদ্রবন্দরকে তিন নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

অন‌্যদিকে, আগামী জুলাই মাসে বঙ্গোপসাগরে দুটি লঘুচাপ সৃষ্টি হতে পারে, যার মধ্যে একটি নিম্নচাপে পরিণত হওয়ার শঙ্কা রয়েছে বলে জানিয়েছেন আফতাব উদ্দীন।

পাঠকের মন্তব্য