ক্রমশ উন্নতি হচ্ছে জাফরুল্লাহ চৌধুরীর শারীরিক অবস্থা

ক্রমশ উন্নতি হচ্ছে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর শারীরিক অবস্থার 

ক্রমশ উন্নতি হচ্ছে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর শারীরিক অবস্থার 

মরণব্যাধী করোনাভাইরাসে সংক্রমিত গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর শারীরিক অবস্থার ক্রমশ উন্নতি হচ্ছে। বর্তমানে তার ফুসফুসের সংক্রমণ অনেকটাই কমে এসেছে। দিনের অধিকাংশ সময় অক্সিজেন ছাড়াই থাকছেন তিনি।

আজ শুক্রবার গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতালের চিকিৎসক ব্রিগেডিয়ার অধ্যাপক ডা. মামুন মুস্তাফি বলেন, ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর শারীরিক অবস্থা ধীরে ধীরে উন্নতির দিকে যাচ্ছে। তার ফুসফুসের সংক্রমণ অনেকটাই কমে গেছে। বর্তমানে দিনের অধিকাংশ সময় অক্সিজেন ছাড়াই থাকছেন।

ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বর্তমানে নিজের স্থাপিত প্রতিষ্ঠান গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতালে আছেন জানিয়ে তিনি বলেন, এখনো গলার ব্যথা রয়েছে। সে জন্য কথা বলতে কষ্ট হচ্ছে। সবাই ওনার দ্রুত সুস্থতার জন্য দোয়া করবেন।

গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতালের অধ্যাপক ডা. ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অবঃ) মামুন মোস্তাফি এবং অধ্যাপক ডা. নাজিব মোহাম্মদ এর তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন আছেন ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। এর আগে গত ৪ জুন ডা. জাফরুল্লাহর ডায়ালাইসিস করতে গেলে শারীরিক অবস্থার কারণে তা সম্পন্ন করা যায়নি। ফলে ওইদিন তার শারীরিক অবস্থার কিছুটা অবনতি হয়।

পরে গত ৫ জুন ডা. জাফরুল্লাহকে সারাদিনই অক্সিজেন দিয়ে রাখা হয়। সেইসঙ্গে ওই দিন রাতে তৃতীয়বারের মতো তাকে প্লাজমা থেরাপি দেওয়া হয়। পাশাপাশি কিডনির ডায়ালাইসিসও সফল হয়। এ অবস্থায় গত শনিবার শারীরিক অবস্থা কিছুটা ভালো ছিল।

গত ২৫ মে নিজেদের উদ্ভাবিত কিটে প্রথম কোভিড-১৯ শনাক্ত হয় ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর। পরে বিএসএমএমইউ হাসপাতালে পিসিআর টেস্ট করালেও একই রেজাল্ট আসে। গত ২৬ মে তিনি প্রথম প্লাজমা থেরাপি নেন।

ডা. জাফরুল্লাহর করোনা শনাক্তের পর টেস্ট করানো হলে তার স্ত্রী শিরীন হক ও ছেলে বারিশ চৌধুরীরও করোনা ধরা পড়ে।

পাঠকের মন্তব্য