লকডাউন হচ্ছে আরো ৫ জেলার ১১ এলাকা

লকডাউন হচ্ছে আরো ৫ জেলার ১১ এলাকা

লকডাউন হচ্ছে আরো ৫ জেলার ১১ এলাকা

মরণঘাতী করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে সংক্রমণের মাত্রা বিবেচনায় দেশের আরো ৫ জেলার ১১ এলাকাকে রেড জোন হিসেবে চিহ্নিত করে লকডাউন জারি এবং সেখানে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। আজ সোমবার এ সংক্রান্ত একটি আদেশ জারি করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

সেখানে বলা হয়, মহামারি করোনা প্রতিরোধে ফরিদপুর, মানিকগঞ্জ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, নরসিংদী ও কুষ্টিয়া জেলার ১১টি রেড জোন অঞ্চলে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হলো। এসব এলাকায় আজ থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত বিভিন্ন মেয়াদে সাধারণ ছুটি থাকবে।

এর মধ্যে ফরিদপুর জেলার ভাংগা পৌরসভার সব ওয়ার্ডকে লকডাউনের আওতাভুক্ত করা হয়েছে। সেখানে ২৩ জুন ২০২০ হতে আগামী ৭ জুলাই ২০২০ পর্যন্ত সাধারণ ছুটি থাকবে।

মানিকগঞ্জ জেলার মধ্যে মানিকগঞ্জ পৌরসভার উত্তর সেওতা, গঙ্গাধর পট্টি ও পশ্চিম দাশড়া এলাকা। সাটুরিয়া উপজেলার সাটুরিয়া ইউনিয়ন ও ধানকোড়া ইউনিয়ন। সিংগাইর উপজেলার সিংগাইর পৌরসভা ও জয়মন্টপ ইউনিয়ন। এলাকাগুলোতে ২৩ জুন হতে আগামী ৪ জুলাই পর্যন্ত সাধারণ ছুটি থাকবে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার মধ্যে সদর পৌরসভার ৪ নং ওয়ার্ডের পাইকপাড়া ও কালাইশ্রীপাড়া, ৫ নং ওয়ার্ডের মধ্যপাড়া এবং ৮ ৪ নং ওয়ার্ডের কাজীপাড়া। নবীনগর উপজেলার নবীনগর পৌরসভার ২ নং ওয়ার্ডের হাসপাতালপাড়া ও পশ্চিমপাড়া, ৩ নং ওয়ার্ডের টিএনটি পাড়া, ৪ নং ওয়ার্ডের হাসপাতালপাড়া ও কলেজপাড়া এবং ৮ নং ওয়ার্ডের ভোলাচং দাসপাড়া।

এ ছাড়া কসবা উপজেলার কসবা পৌরসভার ৪ নং ওয়ার্ডের আড়াইবাড়ি, ৫ নং ওয়ার্ডের শীতলপাড়া এবং ৭ নং ওয়ার্ডের সাহাপাড়া। এলাকাগুলোতে ২৩ জুন হতে আগামী ৪ জুলাই পর্যন্ত সাধারণ ছুটি থাকবে।

নরসিংদী জেলার মধ্যে মাধবদী পৌরসভার ৪ ও ৫ নং ওয়ার্ড উত্তর বিরামপুর এবং দক্ষিণ বিরামপুর। এলাকাগুলোতে ২৩ জুন হতে আগামী ২ জুলাই পর্যন্ত সাধারণ ছুটি থাকবে। কুষ্টিয়া জেলার মধ্যে কুষ্টিয়া পৌরসভার ১, ৩, ৪, ৫, ৬, ৭, ৮, ১৫, ১৮ ও ২০ নং ওয়ার্ড। ভেড়ামারা উপজেলার বাহিরচর ও চাঁদগ্রাম ইউনিয়ন এবং ভেড়ামারা পৌরসভার ১, ২, ৩, ৪, ৫, ৬, ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ড। এলাকাগুলোতে ২৩ জুন হতে আগামী ৭ জুলাই পর্যন্ত সাধারণ ছুটি থাকবে।

কোভিড-১৯ রোগের সংক্রমণ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণে চলমান ঝুঁকি বিবেচনায় জন-চলাচল নিয়ন্ত্রণের লক্ষ্যে এই এলাকাগুলোকে রেড জোন ঘোষণা করায় জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সেখানে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে। এর মধ্যে সাপ্তাহিক ছুটিও অন্তর্ভুক্ত থাকবে।

আদেশ অনুযায়ী, শুধু রেড জোন ঘোষিত এলাকায় সাধারণ ছুটি থাকবে। সেখানে বসবাসরত সকল সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত, আধা-স্বায়ত্তশাসিত, সংবিধিবদ্ধ ও বেসরকারি অফিস-প্রতিষ্ঠান-সংস্থায় কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ক্ষেত্রে এ ছুটি প্রযোজ্য হবে।

তবে জরুরি পরিষেবা এ সাধারণ ছুটির আওতা বহির্ভূত থাকবে বলেও উল্লেখ করা হয়েছে।

এর আগে রোববার মধ্যরাতে ১০ জেলার ২৭টি এলাকাকে রেড জোন হিসেবে চিহ্নিত করে লকডাউন জারি এবং সেখানে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়। সেইসঙ্গে ওই সব এলাকায় ২১ দিনের সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। যদিও এর কোনো কোনোটিকে ১৪ জুন থেকে রেড জোন ঘোষণার কথা প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ রয়েছে এবং সেই হিসাবে সাধারণ ছুটিও ঘোষণা করা হয়েছে।

পাঠকের মন্তব্য