কুবি শিক্ষার্থীকে মেরে রক্তাক্ত করলো সন্ত্রাসীরা

কুবি শিক্ষার্থীকে মেরে রক্তাক্ত করলো সন্ত্রাসীরা

কুবি শিক্ষার্থীকে মেরে রক্তাক্ত করলো সন্ত্রাসীরা

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৩তম ব্যাচের মোঃ আবদুল্লাহ্ নামক এক শিক্ষার্থী ও তার পরিবার জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের বর্বরোচিত হামলার শিকার হয়েছে। সোমবার (২১জুন) রাত ৯টায় কক্সবাজারের রামু উপজেলার ফতেকারকুঁল ইউনিয়নের পশ্চিম মেরোংলায়া এলাকায় এই হামলার ঘটনা ঘটে।

আহত কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মোঃ আব্দুল্লাহর সাথে কথা বলে জানা যায়, পৈত্রিক জমি নিয়ে বিরোধ মেটাতে সালিশি বৈঠকের ব্যবস্থা করা হয়। তার বাবা সালিশে প্রতিপক্ষের প্রস্তাব মানতে অস্বীকৃতি জানালে  আলোচনার বদলে তাদের মারধরে রক্তাক্ত করে প্রতিপক্ষ।

তিনি বলেন, জেঠাতো ভাই বিএনপি নেতা নুরুল আবছারের বাড়িতে বর্তমান ইউপি মেম্বার রুকন উদ্দীনের প্রতিনিধিত্বে সালিশ ডেকে জমি নিয়ে অযৌক্তিক প্রস্তাব রাখে। আব্বা সেই প্রস্তাব মেনে নিতে অস্বীকৃতি জানায়। এতেই তারা উত্তেজিত হয়ে আমার আব্বা-আম্মা, আমি, আমার বড় ভাই ও বোনের উপর ইট-লাঠি ও খুন্তি দিয়ে এলোপাথাড়ি আঘাত করে তাদের পূর্ব-পরিকল্পিত  হত্যার হুমকি বাস্তবায়নের ঘৃণিত চেষ্টা চালায়। ইউপি মেম্বার তাদের বাধা দিলেও তারা তাকে অগ্রাহ্য করে আঘাত করতে থাকে।

তিনি আরও বলেন, উত্তরাধিকার সূত্রে পাওয়া আমার আব্বার পৈতৃক ভিটেমাটিতেই আমরা বসবাস করে আসছি। রেজাউল করিম, মুজিব, বিএনপি নেতা নুরুল আবছার এরা সবাই সম্পর্কে আমার জেঠাতো ভাই হয়। আমার দাদার মৃত্যুর পর অর্থাৎ আজ থেকে ৯ বছর পূর্বেই আমার আব্বাসহ তিন ভাইয়ের উত্তরাধিকারসূত্রে জায়গাজমির প্রাপ্য অংশ ভাগ-বণ্টন করা হয়েছে। এত বছর পর আবছারসহ আমার বৃদ্ধ পিতার দুইভাই নতুন তালবাহানা শুরু করে। আব্বা তাদের অন্যায় দাবি প্রত্যাখ্যান করে সমঝোতায় না গেলে তারা আমাদের মেরে জমি দখলের হুমকি দেয়। এরই ধারাবাহিকতায় সালিশে মারধর করা হয়। 

এদিকে নিজ বিভাগের শিক্ষার্থী হামলার শিকার হওয়া প্রসঙ্গে আইন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান রোকসানা আক্তার বলেন 'তার কোনো ধরণের আইনি সহায়তা বা পরামর্শ দরকার হলে অবশ্যই তা করা হবে।'

পাঠকের মন্তব্য