টানা দ্বিতীয় বারের মত কুবিতে অনুষ্ঠিত হবে হাল্ট প্রাইজ প্রোগ্রাম

টানা দ্বিতীয় বারের মত কুবিতে অনুষ্ঠিত হবে হাল্ট প্রাইজ প্রোগ্রাম

টানা দ্বিতীয় বারের মত কুবিতে অনুষ্ঠিত হবে হাল্ট প্রাইজ প্রোগ্রাম

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে দ্বিতীয় বারের মত অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে হাল্ট প্রাইজ প্রোগ্রাম। 'লিডিং অ্যা জেনারেশন টু চ্যাঞ্জ দ‍্যা ওয়ার্ল্ড' এই স্লোগান নিয়ে হাল্ট আন্তর্জাতিক বিজনেস স্কুলের তত্ত্বাবধানে এবং সুইডিশ উদ্যোক্তা বার্টিল হাল্ট এবং তাঁর পরিবারের আর্থিক সহায়তায় এটি পরিচালিত হয়। এটি সাধারণত প্রতি বছরের শেষের দিকে অনুষ্ঠিত হয়।

প্রতি বছর আমেরিকার  সাবেক প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটন এমন একটি সামাজিক সমস্যা চিহ্নিত করেন যা বিশ্বের বিলিয়ন বিলিয়ন অসহায় মানুষের ওপর প্রভাব ফেলে। এরপর তিনি প্রতিযোগীদের উদ্দেশ্যে একটি চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেন। তিন থেকে চার সদস্যের এক একটি প্রতিযোগী দল সমস্যাগুলি সমাধানের জন্য ভিন্ন ভিন্ন সামাজিক উদ্যোগের উদ্ভাবনী ধারণা তৈরি করে। প্রতিযোগী শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানসমূহের মধ্যে রয়েছে 'হার্ভার্ডের মত  প্রতিষ্ঠান। তাছাড়া বাংলাদেশেও বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় এ এটি সফলতার সাথে অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিশ্বের বিভিন্ন ক্যাম্পাসে সরাসরি আয়োজন করা হয় হাল্ট-প্রাইজ প্রোগ্রামটির 'ক্যাম্পাস রাউন্ড'। আঞ্চলিক প্রতিযোগিতায় বিজয়ী দলসমূহ 'জেনারেল এপ্লিকেশন' রাউন্ড -এ অংশগ্রহণ ছাড়াই সরাসরি মুম্বাই, সিংগাপুর, সাংহাই সহ আরও বিভিন্ন স্থানে অনুষ্ঠিত আঞ্চলিক সমাপনী রাউন্ড এ অংশগ্রহণের সুযোগ পেয়ে থাকে।

২০০৯ সাল থেকে এ পর্যন্ত আয়োজিত প্রতিযোগিতাসমূহে শিক্ষার সুব্যবস্থা, সুপেয় পানির অপ্রতুলতা, আবাসন সমস্যা, নির্ভরযোগ্য শক্তি ও সৌর ব্যবস্থাপনা, খাদ্য ও স্বাস্থ্য সমস্যা ইত্যাদি বিষয় উঠে এসেছে।

২০২০-২১ বর্ষের হাল্ট প্রোগ্রামের জন্য কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস ডিরেক্টর নির্বাচিত হয়েছেন ফিন্যান্স এবং ব্যাংকিং বিভাগের মো.জহির রায়হান। তিনি এই ব্যাপারে বলেন, শিক্ষার্থীদের নোবেল খ্যাত হাল্ট প্রাইজ দ্বিতীয় বারের মতো কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে আয়োজন করার কার্যক্রম শুরু করেছি। ইতিমধ্যে ক্যাম্পাসের অর্গানাইজিং টিম রিক্রুটমেন্ট পক্রিয়া শুরু হয়েছে। আশাকরি আমরা এবার খুব জমজমাট ভাবে হাল্ট প্রাইজ ২০২০-২০২১ আয়োজন করতে পারবো এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরা মেধাবীদের বিশ্বের সামনে উপস্থাপন করতে পারবো।

উল্লেখ্য, বিজয়ীরা ১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার (বাংলাদেশী টাকায় প্রায় ৮ কোটি টাকা) এবং আন্তর্জাতিক ব্যবসায়িক সংগঠনের নিকট হতে প্রশিক্ষণ এবং পরামর্শ গ্রহণের সুযোগ পেয়ে থাকেন। এছাড়া চূড়ান্ত প্রতিযোগীদের প্রত্যেকের জন্য 'ক্লিনটন গ্লোবাল ইনিশিয়েটিভ' মত আকর্ষণীয় সংস্থার সদস্যপদ লাভ এবং পরীক্ষামূলক অর্থসংস্থানের সুবিধাও বরাদ্দ রয়েছে !

পাঠকের মন্তব্য