শ্রোতা-ভক্তদের কাছে এন্ড্রু কিশোরের শেষ অনুরোধ

শ্রোতা-ভক্তদের কাছে এন্ড্রু কিশোরের শেষ অনুরোধ

শ্রোতা-ভক্তদের কাছে এন্ড্রু কিশোরের শেষ অনুরোধ

‘ডাক দিয়াছেন দয়াল আমারে, রইবো না আর বেশি দিন তোদের মাঝারে’। মৃত্যুর কিছুদিন আগে এভাবেই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে নিজের চলে যাওয়ার কথা শ্রোতা-ভক্তদের ইঙ্গিত দিয়েছিলেন বাংলা গানের প্লেব্যাক সম্রাট এন্ড্রু কিশোর।

গত সোমবার সন্ধ্যায় জন্মস্থান রাজশাহীতে মরণব্যাধী ক্যান্সারের কাছে হার মেনে না ফেরার দেশে পাড়ি জমিয়েছেন কিংবদন্তি এ কণ্ঠশিল্পী। তবে পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করার আগে শ্রোতা-ভক্তদের কাছে কিছু অনুরোধ জানিয়ে গেছেন তিনি।

ফেসবুকে দেওয়া এক স্ট্যাটাসে এন্ড্রু কিশোর তার শ্রোতা-ভক্তদের অনুরোধ করেছিলেন, তার গাওয়া গানগুলোকে যেনো সবাই ভালোবেসে বাঁচিয়ে রাখে। সেগুলো যেনো কেউ বিকৃত না করে। সবাই যেনো তার গানগুলো স্বাভাবিক ও সাবলীলভাবে যত্ন করে রাখে।

এই একই অনুরোধ তিনি বেঁচে থাকতে গণমাধ্যমে দেওয়া একাধিক সাক্ষাৎকারেও শ্রোতা-ভক্তদের কাছে জানিয়েছেন। 

গত সোমবার সন্ধ্যায় রাজশাহী নগরীর মহিষাবাথান এলাকায় অবস্থিত বোন ডা. শিখা বিশ্বাসের বাসায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন বাংলা গানের জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী এন্ড্রু কিশোর। তিনি দীর্ঘদিন ধরে ব্লাড ক্যান্সারে আক্রান্ত ছিলেন। মৃত্যুর পর ওইদিন রাতেই তার মরদেহ রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের হিমঘরে নেওয়া হয়। বর্তমানে তার মরদেহ সেখানেই আছে।

জানা যায়, এন্ড্রু কিশোরের ছেলে সপ্তক (২৪) ও মেয়ে সঙ্গা (২৬) অস্ট্রেলিয়ায় পড়াশুনা করছেন। তারা দুজন দেশে ফেরার পর আগামী ১৫ জুলাই তাদের বাবার শেষকৃত্যের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। ততদিন পর্যন্ত গুণী এ কণ্ঠশিল্পীর মরদেহ রামেক হাসপাতালের হিমঘরেই রাখা হবে।

১৯৫৫ সালের ৪ নভেম্বর জন্মগ্রহণ করেন এন্ড্রু কিশোর। জন্মস্থান রাজশাহীতেই কেটেছে তার শৈশব-কৈশোর। ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের পর গানের টানে ঢাকায় চলে আসেন। ১৯৭৭ সালে ‘মেইল ট্রেন’ চলচ্চিত্রে প্লেব্যাক গানের মাধ্যমে সঙ্গীত জগতে নাম লেখান এন্ড্রু কিশোর। এরপর ‘জীবনের গল্প আছে বাকি অল্প’, ‘আমার সারা দেহ খেও গো মাটি’, ‘ডাক দিয়াছেন দয়াল আমারে’, ‘হায়রে মানুষ রঙিন ফানুস’, ‘আমার বুকের মধ্যে খানে’সহ অসংখ্য জনপ্রিয় বাংলা গান শ্রোতাদের উপহার দিয়েছেন এই কণ্ঠশিল্পী। দীর্ঘ সঙ্গীত জীবনে মোট আট বার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারসহ অসংখ্য পুরস্কার পেয়েছেন তিনি।

পাঠকের মন্তব্য