বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের নামে অনিয়ম ও সাংগঠনিক বিবৃতি 

বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের নামে অনিয়ম ও সাংগঠনিক বিবৃতি 

বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের নামে অনিয়ম ও সাংগঠনিক বিবৃতি 

বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের নামে অবৈধ ও অনিয়মতান্ত্রিক কার্যক্রম প্রসঙ্গে।

মুজিবীয় শুভেচ্ছাসহ দেশে বিদেশে থাকা বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের নেতাকর্মীসহ সকলের জ্ঞাতার্থে জানানো যাচ্ছে যে-

১) বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের হাজার হাজার নেতাকর্মীর ক্ষুব্ধতা ও দাবীর প্রেক্ষিতে সংগঠনের সকল গ্রুপের ১৪/৯/২০১৯ তারিখের যৌথসভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণতহবিলে প্রদেয় অর্থ আত্মসাৎ, বঙ্গবন্ধু পরিবার ও আওয়ামী লীগ বিরোধী বক্তব্য প্রদান, দূর্নীতি, চাঁদাবাজী, প্রতারণা, কমিটি/পদ বাণিজ্য, প্লট দেয়ার নামে শত শত মানুষের অর্থ আত্মসাৎ, সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের ক্ষমতা খর্ব করে কুক্ষিগত করা, অনৈতিক এবং সংগঠন বিরোধী কাজসহ বিভিন্ন অভিযোগে নির্বাহী সভাপতি দাবীদার মশিউর মালেকসহ কয়েকজনকে সংগঠনের সকল পদে থেকে বহিষ্কার করা/অব্যাহতি দেয়া হয়। এছাড়া, মোমেন সাহেবও মশিউর মালেককে পদ ছাড়তে বার বার পরামর্শ দিয়েছেন।

২) উল্লেখ্য, জনাব সজীব ওয়াজেদ জয় আমেরিকায়  সর্বপ্রথম বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠা করেন; যা আমাদের সভাপতি ড. এ,কে, আব্দুল মোমেন সাহেবও সংগঠনের বিভিন্ন সভা সমাবেশ ও বৈঠকে বিভিন্ন সময়ে উল্লেখ করেছেন।

৩) সজীব ওয়াজেদ জয়ের আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে সংগঠনটির ১৪/৯/১৯ তারিখের যৌথ সভা মোতাবেক বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের সিলেকশন বোর্ড কর্তৃক ড. এ,কে, আব্দুল মোমেন মহোদয়কে সভাপতি এবং জনাব মোহাম্মদ ফেরদৌস আলমকে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করা হলে তাদের নেতৃত্বে সংগঠনটি অত্যন্ত সুনামের সাথে কাজ করে যাচ্ছে। 

৪) বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল ট্রাস্টের অনুমোদন ব্যতিরেকে বঙ্গবন্ধু বা তাঁর পরিবারের সদস্যদের নামে কোন সংগঠন করা যাবে না মর্মে জাতীয় সংসদে আইন পাশ করা হয়েছে। এই আইন পরিপালনে আমরা সদা সচেষ্ট রয়েছি। বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল ট্রাস্টের দায়িত্বশীলদের পরামর্শে আইনসিদ্ধ ভাবে আমরা সীমিত পর্যায়ে সাংগঠনিক কার্যক্রম (ট্রাস্টের অনুমোদন প্রাপ্তির জন্য যতটুকু প্রয়োজন) পরিচালনা করে আসছি। বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল ট্রাস্ট বা বঙ্গবন্ধু পরিবার ভবিষ্যতে যাদেরকে বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের নেতৃত্বে নিয়ে আসবেন সংগঠনের সবাই তাদের সাথে কাজ করতে বদ্ধপরিকর।

করোনা মহামারীর এ সময়ে বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন থেকে বহিষ্কৃত/অব্যাহতিপ্রাপ্ত ব্যক্তি কর্তৃক মনগড়া, মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন ও বিভ্রান্তিকর প্রচারণা করা অত্যন্ত গর্হিত কাজ। এ ধরণের অপপ্রচারে বিভ্রান্ত না হতে সংগঠনের নেতৃবৃন্দসহ সকলকে পরামর্শ দেয়া যাচ্ছে। 

বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের সিদ্ধান্তক্রমে-

মোঃ আনোয়ার হোসেন 
কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক  
বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন

পাঠকের মন্তব্য