আবারো দুর্যোগের কবলে দেলুটি : বেঁড়িবাঁধ ভেঙ্গে ৩ গ্রাম প্লাবিত

আবারো দুর্যোগের কবলে দেলুটি : বেঁড়িবাঁধ ভেঙ্গে ৩ গ্রাম প্লাবিত

আবারো দুর্যোগের কবলে দেলুটি : বেঁড়িবাঁধ ভেঙ্গে ৩ গ্রাম প্লাবিত

প্রাকৃতিক বিপর্যয় যেন দেলুটিবাসীর পিছু ছাড়ছে না। একের পর এক দুর্যোগ লেগেই আছে। ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের তান্ডব কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই আবারো দেলুটি ইউনিয়নের গেউয়াবুনিয়া, পারমধুখালী, চকরিবকরি গ্রাম আংশিক প্লাবিত হয়ে শত শত মানুষ বানভাসী অবস্থায় মানবেতর জীবন যাপন করছে।

গতকাল বুধবার ও বৃহস্পতিবার পূর্ণিমার অস্বাভাবিা জোয়ারের পানি বৃদ্ধিতে দেলুটী ইউনিয়ানের ২০ নং ২০/১ নং পোল্ডারের গেউয়াবুনিয়া, পারমধুখালী, চকরিবকরি'র বেঁড়িবাঁধ ভেঙ্গে ৩ গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। প্লাবিত হওয়ায় এলাকার শত শত মানুষ পানিবন্ধী হয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে। লোনা জলের মানুষগুলোর আয়ের প্রধান উৎস মাছ চাষ। ছোট-বড় কয়েক শত মৎস্য ঘের রয়েছে। এই তো সম্প্রতি আম্ফানের কবলে বেঁড়িবাঁধ ভেঙ্গে মানুষগুলো সর্বস্ব হারিয়েছে। ক্ষত শুকাতে ধার-দেনা,ঋণ করে সবে নতুন করে পোনামাছ ছেড়ে স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছে এলাকাবাসী। লোনা জলের ছোট ছোট ঢেউ এর মত স্বপ্নগুলো বুনছিল।কিন্তু বিধি বাম। দুর্বল বেঁড়িবাঁধের কারণে একটানা বৃষ্টি ও পূর্ণিমার জোয়ারে অস্বাভিবিক পানি বৃদ্ধিতে পুনঃরায় বাঁধ ভেঙ্গে এলাকা জলমগ্ন। এবার জোয়ারে পানিতে খুয়েছে সর্বস্ব। 

ঘর-বাড়ী, রাস্তা-ঘাট, পুকুর, মৎস্য ঘের, গবাদীপশু, আমন ধানের বীজতলা সবই একাকার। শুক্রবার এ রিপোর্ট লেখার আগ পর্যন্ত ইউপি চেয়ারম্যান রিপন কুমার মন্ডল দেলুটি ইউনিয়ানের আপামোর জণসাধারণদের নিয়ে তাদের অক্লন্ত পরিশ্রমে ভাঙ্গা বেঁড়িবাঁধ টি নির্মাণের চেষ্টা করছিল। সর্বহারা মানুষ গুলো তাকিয়ে আছে সরকারের উপর। রুটিরুজি কিছুই নাই। একজনতো আপসোস করে বলেই ফেললেন, আমাদের জন্ম হয়েছে মনে হয় শুধু হাত পাতার জন্যেই। দাবি, যতদ্রুত সম্ভব টেঁকসই বেঁড়িবাঁধ নির্মাণ।

এব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান রিপন কুমার মন্ডল এ প্রতিনিধি কে জানান, মাননীয় জাতীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মোঃ আক্তারুজ্জামান বাবু'র দিকনির্দেশনায় এবং ইউএনও এবিএম খালিদ হোসেন সিদ্দীকি'র পরামর্শ ও এলাকাবাসীর সার্বিক সহযোগিতা ও অক্লান্ত পরিশ্রমে ক্ষতিগ্রস্থ বাঁধ নির্মাণের কাজ চলমান। 

নবাগত উপজেলা নির্বাহী অফিসার এবিএম খালিদ হোসেন সিদ্দিকী বলেন, এলাকার সার্বিক বিষয়ে খোঁজখবর নিয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষে জানানো হয়ে। স্থানীয় চেয়ারম্যান কে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তিনি আরো বলেন টেঁকসই বেঁড়িবাঁধ নির্মাণ না হওয়া পর্যন্ত স্থায়ী সমাধান সম্ভব নয়। এজন্য টেঁকসই বেঁড়িবাঁধ নির্মাণে সরকারের যে মহাপরিকল্পনা রয়েছে সেটা দ্রুত বাস্তবায়নেরর জন্য সরকার সচেষ্ট। ইউপি চেয়ারম্যান সহ এলাকাবাসী দ্রুত সময়ের মধ্যে উক্ত বাঁধ নির্মাণ সহ বানভাসী মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য যথাযথ কর্তৃপক্ষের সদয় দৃষ্টি আকর্ষন করেছেন। 

 

পাঠকের মন্তব্য