কুড়িগ্রামে দেখা দিয়েছে গবাদিপশুর চর্ম রোগ

কুড়িগ্রামে দেখা দিয়েছে গবাদিপশুর চর্ম রোগ

কুড়িগ্রামে দেখা দিয়েছে গবাদিপশুর চর্ম রোগ

তিনদফা বন্যায় বিপর্যস্ত কুড়িগ্রামের চরাঞ্চলের মানুষ। পানিবন্দি দশা থেকে মুক্তি মিললেও নতুন করে যোগ হয়েছে গবাদিপশুর রোগবালাই। দীর্ঘদিন পানিতে থেকে গরুর এক ধরণের চর্ম রোগ দেখা দিয়েছে। প্রাণিসম্পদ বিভাগ থেকে তেমন কোন সহায়তা পাচ্ছেন না বন্যাদুর্গতরা।

প্রতিবছর বন্যার সাথে লড়াই করে টিকে থাকে কুড়িগ্রামের সাড়ে ৪শ'রো বেশি চরের মানুষ। তাদের আয়ের প্রধান উৎস, ফসল উৎপাদন ও গবাদি পশু পালন। কিন্তু বন্যা হলে গাবাদি পশুগুলো নিয়ে রীতিমত দুশ্চিন্তায় পড়েন তারা। এবছরও বন্যায় গবাদি পশুর নানা রোগ দেখা দিয়েছে।

প্রাণিসম্পদ বিভাগ থেকে বলা হচ্ছে, রোগবালাই থেকে বাঁচার জন্য বন্যার আগে ২৬ হাজারের বেশি গরুকে টিকা দেয়া হয়েছে। কিন্তু পশু পালনকারীরা বলছেন, অধিকাংশ গরু টিকা পায়নি। এতে গরুগুলো ল্যাম্পি স্কিন ডিজিসসহ নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। এছাড়া চিকিৎসক সংকট থাকায় মিলছে না কোন চিকিৎসাও। ফলে গরুগুলো নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন তারা।

রোগটি নিয়ে আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শ দিয়ে জেলা প্রণিসম্পদ কর্মকর্তা বললেন, রোগ নিয়ন্ত্রণে ভ্যাকসিন দেয়া হচ্ছে।

পশুগুলো রাখার জায়গার আশপাশ পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখার পরামর্শও দিলেন প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা।
 

পাঠকের মন্তব্য