কুয়াকাটা পর্যটন এলাকায় আইনশৃঙ্খলা সভা

কুয়াকাটা পর্যটন এলাকায় আইনশৃঙ্খলা সভা

কুয়াকাটা পর্যটন এলাকায় আইনশৃঙ্খলা সভা

অদ্য ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ তারিখ ১৫.৩০ ঘটিকায় মহিপুর থানাধীন কুয়াকাটাস্থ সকল হোটেল, মোটেল, রিসোর্ট ও কটেজের মালিক/প্রতিনিধিদের নিয়ে কুয়াকাটা পর্যটন এন্ড ইয়ুথ ইন এর সম্মেলন কক্ষে এক আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত সভায় সম্মানিত সাংবাদিক সহ প্রায় দুই শতাধিক মালিক/প্রতিনিধি অংশগ্রহণ করেন। 

উল্লেখ্য যে, বাংলাদেশের অন্যতম একটি পর্যটন কেন্দ্র হচ্ছে কুয়াকাটা এবং পর্যটন শিল্প দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের অন্যতম হাতিয়ার। শুধু তাই নয়, বিশ্বের দরবারে বাংলাদেশকে ব্রান্ডিং করার ক্ষেত্রে পর্যটন এলাকা সমূহ অপরিসীম অবদান রাখতে পারে। বিশেষ স্মর্তব্য যে, যেকোন উন্নয়নের প্রধান ও পূর্ব শর্ত হচ্ছে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নয়ন। এরই ধারাবাহিকতায় অদ্য কুয়াকাটায় এ আইনশৃঙ্খলা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

মতবিনিময় সভায় উপস্থিত সকলের নিকট থেকে আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক মতামত ও অবজার্ভেশন জানতে চাওয়া হয়। তাদের প্রত্যেকটি মতামতের উপর পটুয়াখালী জেলার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মইনুল হাসান পিপিএম সুনির্দিষ্ট দিকনির্দেশনা মূলক বক্তব্য প্রদান করেন এবং পুলিশের ভূমিকা সম্পর্কে আলোকপাত করেন। শুধু তাই নয় ইতোপূর্বে ২৯ এপ্রিল ২০১৯ তারিখ অনুষ্ঠিত সভায় যে সকল নির্দেশাবলি প্রদান করা হয়েছিল তা সম্পর্কে বিস্তারিত আলোকপাত করা হয়। তথায় ১৮ টি কলাম বিশিষ্ট যে চেকলিস্ট ফর্ম প্রদান করা হয়েছিল তা সর্ব সম্মতিক্রমে মিনিটস আকারে গৃহীত হয়েছিল যা বাস্তবায়ন করা হলে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি শতভাগ নিয়ন্ত্রণে থাকবে। তন্মধ্যে উল্লেখযোগ্য ছিল- সিসি টিভি স্থাপন, প্রদত্ত ফোন নাম্বার সচল আছে কিনা তা নিশ্চিত করা, হোটেলের নিজস্ব গার্ড কর্তৃক বোর্ডারদের সাথে থাকা সকল জিনিসপত্র সঠিকভাবে তল্লাশি করা, হোটেলে অবস্থানকারী কোন ব্যক্তির চলাফেরা সন্দেহজনক মনে হলে তাৎক্ষণিকভাবে থানায় অবহিত করন, বাউন্ডারি ওয়াল ও গেইট অধিকতর মজবুত করন, প্রযোজ্য ক্ষেত্রে ভেহিকেল সার্স মিরর দিয়ে গাড়ি তল্লাশিকরন ইত্যাদি।

বিষয়গুলো সঠিকভাবে বাস্তবায়ন হচ্ছে কি না তা সার্বক্ষণিক মনিটরিং সহ ব্যত্যয় ঘটলে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

পাঠকের মন্তব্য