করোনায় শিক্ষক-কর্মচারীদের পাশে আছে সরকার

করোনায় শিক্ষক-কর্মচারীদের পাশে আছে সরকার

করোনায় শিক্ষক-কর্মচারীদের পাশে আছে সরকার

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ঠাকুরগাঁও-১ আসনের সংসদ সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন বলেছেন, করোনার এই সংকট মোকাবেলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে এবং সেগুলো বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় করোনার প্রনোদনা হিসেবে নন এমপিও ভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও কর্মচারীদের আর্থিকভাবে সহযোগিতা করা হচ্ছে। এ সরকার শুধু শিক্ষক ও কর্মচারীদের পাশে নয়, বাংলাদেশের ক্ষতিগ্রস্ত প্রত্যেকটি মানুষকে সহযোগিতা করতে আসছে।

বুধবার সকালে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা পরিষদ হলরুমে 'করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত' নন এমপিও ভুক্ত মাদ্রাসার শিক্ষক ও কর্মচারীদের মাঝে সরকারের প্রনোদনা হিসেবে চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন।

সদর উপজেলার নন এমপিও ভুক্ত মাদ্রাসা, স্বতন্ত্র এবতেদায়ী মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষক প্রতিষ্ঠানের ৩৬৩ জন শিক্ষক ও ৬৯ জন কর্মচারীর মাঝে ১৯ লক্ষ ৮৭ হাজার ৫শ টাকার প্রনোদনার চেক বিতরণ করেন সাংসদ রমেশ চন্দ্র সেন।

সাংসদ রমেশ চন্দ্র সেন বলেন, দেশের যে কোন দুর্যোগেই আওয়ামী লীগ সবসময় জনগণের পাশে থেকে কাজ করেছে। করোনার এই ক্রান্তিলগ্ন সময়েও সরকার ও আওয়ামী লীগের প্রত্যেকটি নেতাকর্মী মাঠে থেকে কাজ করে যাচ্ছে। এতে অনেকেই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন, অনেকেই মারাও গেছেন। তারপরও কিন্তু সরকার ও আওয়ামী লীগ ক্রান্তলগ্ন সময়ে তাদের সর্বোচ্চ দিয়ে কাজ করে যাচ্ছে।

সংসদ সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন করোনা ভাইরাসের সংক্রমণরোধে ঠাকুরগাঁওবাসীসহ দেশবাসীকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়ে বলেন, প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে বের হবেন না। বাইরে বের হলে মানুষের ভিড় এড়িয়ে চলুন। যারা করোনা ভাইরাস-আক্রান্ত হয়ে বিদেশ থেকে ফিরেছেন, তারা ১৪ দিন সম্পূর্ণ আলাদা থাকুন। ঘনঘন সাবান-পানি দিয়ে হাত ধুতে হবে। হাঁচি-কাশি দিতে হলে রুমাল বা টিস্যু পেপার দিয়ে নাক-মুখ ঢেকে নিন। যেখানে-সেখানে কফ-থুথু ফেলবেন না। করমর্দন বা কোলাকুলি থেকে বিরত থাকুন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা পরিষদের নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ আল মামুন, ঠাকুরগাঁও জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম স্বপন, সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুর রশীদ, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোশারফ হোসেন সহ অনেকে।

পাঠকের মন্তব্য