আমি ন্যায়বিচার পাইনি; আপিল করব প্রিজনভ্যান থেকে শাহেদ

আমি ন্যায়বিচার পাইনি; আপিল করব প্রিজনভ্যান থেকে শাহেদ

আমি ন্যায়বিচার পাইনি; আপিল করব প্রিজনভ্যান থেকে শাহেদ

করোনা পরীক্ষার নামে প্রতারণা ও অনিয়মের অভিযোগে গ্রেপ্তার রিজেন্ট গ্রুপ ও রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাহেদকে অস্ত্র মামলায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। এর সঙ্গে আরেক ধারায় ৭ বছরের কারাদণ্ডও দিয়েছে আদালত।

আজ সোমবার ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের এ রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছে রাষ্ট্রপক্ষ। তবে প্রিজন ভ্যানে তোলা হলে শাহেদ বলেন, এটার সাথে আমি জড়িত না। আমি ন্যায়বিচার পাইনি, হাইকোর্টে আপিল করব।

রায় ঘোষণা উপলক্ষে আজ দুপুর সাড়ে ১২টায় জেল থেকে প্রিজন ভ্যানে করে আদালতে আনা হয় শাহেদকে। বুলেট প্রুফ জ্যাকেট ও হেলমেট পড়িয়ে আদালতের গারদে রাখার পর রায় ঘোষণার আগ মুহূর্তে এজলাসে তোলা হয়। সেভাবেই আবার রায় শেষে জেলে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে।

করোনাভাইরাস পরীক্ষার নামে রোগীদের সঙ্গে প্রতারণার অভিযোগে গত ১৫ জুলাই সাতক্ষীরার সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে শাহেদকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। পরে আদালতের মাধ্যমে তাকে ১০ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়। এ সময় উত্তরায় অবস্থিত তার একটি কার্যালয়ে অভিযান চালিয়ে অবৈধ অস্ত্র এবং জাল টাকা উদ্ধার করা হয়।

পরে রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম থানায় শাহেদের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে মামলা দায়ের করা হয়। তদন্ত শেষে গত ৩০ জুলাই আদালতে মামলার চার্জশিট দাখিল করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের পরিদর্শক (ইন্সপেক্টর) মো. শায়রুল। এরপর ২৭ আগস্ট আদালত এই মামলার অভিযোগ গঠন করলে শাহেদের বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক বিচার কার্যক্রম শুরু হয়।

পাঠকের মন্তব্য