‘ভৌতিক’ বিদ্যুৎ বিল বাতিলের নির্দেশ : হাইকোর্ট

‘ভৌতিক’ বিদ্যুৎ বিল বাতিলের নির্দেশ : হাইকোর্ট

‘ভৌতিক’ বিদ্যুৎ বিল বাতিলের নির্দেশ : হাইকোর্ট

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত অসংখ্য গ্রাহকের অতিরিক্ত বিদ্যুৎ বিল এসেছিল। সেগুলো বাতিল এবং প্রকৃত মিটার-রিডিংয়ের মাধ্যমে একটি সমন্বিত বিল তৈরি করতে বিদ্যুৎ সরবরাহ কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। সোমবার এক ভার্চুয়াল শুনানি শেষে এ আদেশ দেন বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মহিউদ্দিন শামীমের হাইকোর্ট বেঞ্চ।

কনজুমার অ্যাসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশের (সিএবি) দায়ের করা রিট আবেদনের ভার্চুয়াল শুনানি শেষে আদেশে বলা হয়, হাইকোর্ট কর্তৃপক্ষকে ওইসব বাড়তি বিল বাদ দিয়ে গ্রাহকের কাছ থেকে বিলম্ব চার্জ নিতে হবে। একই সঙ্গে দুই মাসের মধ্যে এ নির্দেশ পালনের বিষয়ে পৃথক প্রতিবেদন দাখিল করতে হবে।

যে সংস্থাগুলোকে সমন্বিত বিদ্যুৎ বিল প্রস্তুত করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে সেগুলো হলো- বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি), পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড (আরইবি), ঢাকা বিদ্যুৎ উন্নয়ন সংস্থা (ডিপিডিসি), ঢাকা বিদ্যুৎ সরবরাহ সংস্থা (ডেসকো), পশ্চিম জোন বিদ্যুৎ বিতরণ সংস্থা (ডাব্লিউজেডপিসি) ও উত্তর জোন বিদ্যুৎ সরবরাহ সংস্থা (এনইএসসি)। বাংলাদেশ জ্বালানি নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিইআরসি) জুলাই মাসের নির্দেশনা অনুযায়ী এসব প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের এ নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

পাশাপাশি বিইআরসির নির্দেশ লঙ্ঘনের জন্য বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন আইন-২০০৩ এর ৪৩ ধারা অনুযায়ী কেনো বিদ্যুৎ সরবরাহকারী কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে না, সেটির কারণ জানাতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

পাঠকের মন্তব্য