নাস্তিকরাও মোল্লাদের মতো হয়ে গেছে : শাহরিয়ার 

নাস্তিকরাও মোল্লাদের মতো হয়ে গেছে : শাহরিয়ার 

নাস্তিকরাও মোল্লাদের মতো হয়ে গেছে : শাহরিয়ার 

উগ্রবাদী মোল্লারা যে আচরণ করেন, নাস্তিকরাও এখন তাই করছেন বলে মন্তব্য করেছেন বিশিষ্ট লেখক, সাংবাদিক ও ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবির। বুধবার ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত এবং একই ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার প্রসঙ্গে এক প্রতিক্রিয়ায় তিনি এ কথা বলেন।

শাহরিয়ার কবির বলেন, নাস্তিকরা ক্রমেই উগ্রবাদী হয়ে উঠছে। উগ্রবাদী মোল্লারা যে আচরণ করেন, তারাও এখন তাই করছেন, সমাজে হিংসা, বিদ্বেষ, অশান্তি ছড়াচ্ছে এবং বিশ্বাসীদের অনুভূতিতে আঘাত করছে। তারা আল্লাহ-রসুলকে নিয়ে বিষোদগার করছে। যা সুস্থ মস্তিষ্কের কাজ নয়। সমাজে এক অস্থির সময় বিরাজ করছে।

নাস্তিকরা আগে ঠিক এমন ছিল না উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিশ্বের ৭০০ কোটি মানুষের মধ্যে ৬০০ কোটিই সৃষ্টিকর্তায় বিশ্বাস করেন এবং তাদের এ বিশ্বাসকে অস্বীকার করার কোনো উপায় নেই। ধর্মীয় আচার-অনুভূতির প্রকাশ মানুষের স্বাধীনতা, আর অন্যের অধিকারকে খাটো করে দেখা কোনো ধর্মই সমর্থন করে না।

কিন্তু উগ্রবাদী মোল্লারা একে অপরের প্রতি হিংসা-বিদ্বেষ ছড়াতে ধর্মের অপব্যাখ্যা দিয়ে আসছেন। আমরা ধর্মান্ধদের এমন আচরণের প্রতিবাদ করে আসছি এবং তাদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্র কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছে না বলে কড়া সমালোচনাও করছি, যোগ করেন এই বিশ্লেষক।

একইভাবে নাস্তিকদের হিংসা ছড়ানোরও বিরোধিতা করছেন জানিয়ে তিনি বলেন, ধর্মে বিশ্বাস করুন বা না করুন, অন্যের অনুভূতিতে আঘাত দেয়ার অধিকার আপনার নেই। স্বাধীনতার নামে যা খুশি তাই করা যায় না। ওহাবি মোল্লাদের মতো করে নাস্তিকরাও এখন একই কাজ করছে। তারা আল্লাহ-রসুল নিয়ে বিষোদগার করছে। যা সুস্থ মস্তিষ্কের কাজ নয়।

'পশ্চিমা বিশ্ব আর বাংলাদেশ এক নয় এবং এ কথা ব্লগারদের মনে রাখতে হবে। এখানকার বাস্তবতা মেনে নিতে হবে। তারপরই আপনি মত প্রকাশ করতে পারবেন। মৌলবাদীরা অন্যের মতকে মেনে নেয় না, নাস্তিকরাও এখন তাই করছে। মৌলবাদীদের সঙ্গে তাদের আর পার্থক্য রইলো না। পাকিস্তান আমলে নাস্তিকতা করতেন অধ্যাপক আহমেদ শরীফরা। তারা কিন্তু কোনো হিংসা ছড়াননি, বরং সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠার বাণী প্রচার করেছিলেন।'

পাঠকের মন্তব্য