কুতুবদিয়ায় যথাযোগ্য মর্যাদায় জশনে জুলুস পালিত

কুতুবদিয়ায় যথাযোগ্য মর্যাদায় জশনে জুলুস পালিত

কুতুবদিয়ায় যথাযোগ্য মর্যাদায় জশনে জুলুস পালিত

কুতুবদিয়ায় প্রতি বছরের মতো এবারও ঈদে মিলাদুন্নবী (সাঃ) উপলক্ষে জশনে জুলুস পালিত হয়েছে। শুক্রবার (৩০ অক্টোবর) সকালে উপজেলার আলী আকবর ডেইল ইউনিয়নের কুতুব আউলিয়ার মাজার প্রাঙ্গন থেকে জশনে জুলুস বের হয়। বাংলাদেশ গাউসিয়া কমিটির উদ্যোগে এ আয়োজন করা হয়েছে।  জশনে জুলুস শেষে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

কুতুবদিয়া গাউসিয়া কমিটির সাধারণ সম্পাদক মৌঃ শামসুল আলম বলেন, সকাল ৭টায় পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী উপলক্ষে কুতুব আউলিয়ার মাজারের সামনে থেকে জশনে জুলুস বের হয়ে পাশ্ববর্তী কয়েকটি ওয়ার্ড ঘুরে এসে শেষ হয়।পরে, দোয়ার মাধ্যমে জশনে জুলুস সমাপ্তি হয়।

কুতুবদিয়া গাউসিয়া কমিটির উপদেষ্টা একরামুল হক সিদ্দিকী বলেন, করোনা ভাইরাসের কারণে এবার ঈদে মিলাদুন্নবীর আয়োজন ছোট পরিসরে নিয়ে আসা হয়েছে। তবে সকাল ৭টায় জশনে জুলুসের একটি র‍্যালী কয়েকটি ওয়ার্ড প্রদক্ষিন করে শেষ হয়। প্রতি বছর শতাধিক গাড়ী বহর নিয়ে জশনে জুলুস পালিত হলেও এবারে করোনার কারণে ধর্মপ্রাণ মুসলমানেরা পায়ে হেঁটে পালন করেন।

উল্লেখ, ১৫০০ বছর আগে আরবি মাসের ১২ রবিউল আউয়াল বিশ্বনবী হয়রত মুহাম্মদ (সাঃ) এর জন্ম ও ওফাত দিবস। সারা বিশ্বের মুসলমানরা এই দিনকে পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সাঃ) হিসাবে পালন করেন। কুতুবদিয়াসহ সারাদেশে যথাযোগ্য মর্যাদায় দিনটি পালন করেন ধর্মপ্রাণ মুসলমানেরা। মুহাম্মদ (সাঃ) পৃথিবীতে এসেছিলেন তওহিদের মহান বাণী নিয়ে। প্রচার করেছেন শান্তির ধর্ম ইসলাম। তাঁর আবির্ভাব এবং ইসলামের শান্তির বাণীর প্রচার সারা বিশ্বে আলোড়ন সৃষ্টি করে।  

পাঠকের মন্তব্য