রায়হান হত্যা : আকবর রিমান্ড শেষে এখন কারাগারে

রায়হান হত্যা : আকবর রিমান্ড শেষে এখন কারাগারে

রায়হান হত্যা : আকবর রিমান্ড শেষে এখন কারাগারে

সিলেটের বন্দরবাজার ফাঁড়িতে পুলিশি নির্যাতনে রায়হান হত্যা মামলার প্রধান আসামি বরখাস্ত হওয়া এসআই আকবর হোসেন ভূঁইয়াকে রিমান্ড শেষে আদালতে হাজির করা হয়। এরপর আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

একইদিন তিনি ছাড়াও এ মামলার আরো তিন আসামিকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। 

তারা হলেন- বন্দরবাজার ফাঁড়ির এএসআই আশেক এলাহী, কনস্টেবল হারুনুর রশিদ ও টিটু চন্দ্র দাস। এর আগে তারা তিনজনই পাঁচদিনের রিমান্ডে ছিলেন। মঙ্গলবার দুপুরে সাতদিনের রিমান্ড শেষে আকবরকে সিলেটের চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করে পিবিআই। পরে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন বিচারক মো. আবুল কাশেম।

সর্বশেষ মঙ্গলবার দুপুরে কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে প্রধান অভিযুক্ত ফাঁড়ি ইনচার্জ বরখাস্তকৃত এসআই আকবর হোসেন ভুইয়াকে সাতদিনের রিমান্ড শেষে আদালতে তোলা হয়। আদালতে জবানবন্দি না দেওয়ায় আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এর আগে, ৯ নভেম্বর সকালে বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ও রায়হান হত্য মামলায় বরখাস্ত হওয়া এসআই আকবর হোসেন ভূঁইয়াকে সিলেটের কানাইঘাট সীমান্ত থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরদিন তাকে সিলেটের চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবুল কাশেমের আদালতে হাজির করে সাতদিনের রিমান্ড আবেদন করে পিবিআই। বিচারক সারদিনের রিমান্ডই মঞ্জুর করেন।

১০ অক্টোবর গভীর রাতে বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে নির্যাতনে গুরুতর আহত হন রায়হান উদ্দিন আহমেদ। পরদিন সকালে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যু হয় তার। এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী তাহমিনা আক্তার তান্নি কোতোয়ালি থানায় মামলা করেন। 

পরে ঘটনার সত্যতা পেয়ে এসআই আকবরসহ চার পুলিশ সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত ও তিনজনকে প্রত্যাহার করে সিলেট মহানগর পুলিশ। মামলাটি বর্তমানে তদন্ত করছে পিবিআই।

পাঠকের মন্তব্য