বাসে আগুন : বিএনপির ১২০ নেতাকর্মীর আগাম জামিন

বাসে আগুন : বিএনপির ১২০ নেতাকর্মীর আগাম জামিন

বাসে আগুন : বিএনপির ১২০ নেতাকর্মীর আগাম জামিন

রাজধানীতে বাস পোড়ানোর ঘটনায় বিভিন্ন থানায় দায়ের করা একাধিক মামলায় বিএনপির ১২০ জন নেতাকর্মীকে আগাম জামিন দিয়েছেন আদালত। আজ বুধবার বিচারপতি মো. হাবিবুল গনি ও বিচারপতি মো. রিয়াজউদ্দিন খানের সমন্বয়ে গঠিত একটি দ্বৈত হাইকোর্ট বেঞ্চ তাদের জামিন মঞ্জুর করেন। আগাম জামিন পাওয়া নেতাকর্মীদের মধ্যে দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ও রয়েছেন।

এদিন আদালতে জামিন আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সমিতির সম্পাদক ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল, ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর, অ্যাডভোকেট নিতাই রায় চৌধুরী, ব্যারিস্টার সালাউদ্দিন দোলন, ব্যারিস্টার মো. মীর হেলাল, অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম সজল, অ্যাডভোকেট মির্জা আল মহামুদ, অ্যাডভোকেট কাজী মো. জয়নাল আবেদিন ও অ্যাডভোকেট মজিবুর রহমান মিয়া।

পরে শুনানি শেষে আদালতের বিচারকগণ বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়সহ দলটির ১২০ নেতাকর্মীর আগাম জামিন মঞ্জুর করেন। আগামী ৫ জানুয়ারি পর্যন্ত তাদের জামিন দেওয়া হয়। পাশপাশি তাদের নিম্ন আদলতে আত্মসমর্পণ করে জামিননামা ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে দাখিল করার আদেশ দেওয়া হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল জানান, আজ বিএনপির শতাধিক নেতাকর্মী বাস পোড়ানোর পৃথক মামলায় আগাম জামিন নিতে আদালতে আসেন। পরে হাইকোর্টের একটি দ্বৈত বেঞ্চ শুনানি শেষে ১২০ জনকে নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিয়ে জামিন মঞ্জুর করেন।

এর আগে রোববার গয়েশ্বর চন্দ্র রায়সহ বিএনপির ১৪০ নেতাকর্মীর পক্ষে হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় আগাম জামিনের আবেদন করেন দলটির আইনবিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার কায়সার কামাল।

গত বৃহস্পতিবার ঢাকা-১৮ আসনের উপনির্বাচন চলাকালীন রাজধানীর বিভিন্ন জায়গায় একধিক বাসে অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে। এসব ঘটনায় বিএনপির কয়েকজন জ্যেষ্ঠ নেতাসহ ৭০০ নেতাকর্মীকে আসামি করে রাজধানীর বিভিন্ন থানায় মোট ১৪টি মামলা দায়ের করে পুলিশ।

পুলিশের ভাষ্য অনুযায়ী, ওইদিন রাজধানীতে মোট ১১টি বাস পোড়ানো হয়েছিল। পাশাপাশি গাড়ি ভাঙচুর ও পুলিশি কাজে বাধা হয়।

পাঠকের মন্তব্য