সিঙ্গাপুরে আটক বাংলাদেশি জেহাদি যুবক

নাশকতার পরিকল্পনা; সিঙ্গাপুরে আটক বাংলাদেশি যুবক

নাশকতার পরিকল্পনা; সিঙ্গাপুরে আটক বাংলাদেশি যুবক

সিঙ্গাপুরে বসেই বাংলাদেশে ফেরার পর হিন্দুদের উপর আক্রমণের ছক কষেছিল। ইচ্ছা ছিল ভারতে অনু্প্রবেশ করে কাশ্মীরে গিয়ে জঙ্গিদের সঙ্গে জেহাদ করারও। কিন্তু, সেই স্বপ্ন আর পূরণ হল না বাংলাদেশের ২৬ বছরের যুবক আহমেদ ফয়সলের। নাশকতার পরিকল্পনা বাস্তবায়িত করার আগেই তাকে গ্রেপ্তার করল সিঙ্গাপুরের পুলিশ।

সিঙ্গাপুর -এর প্রশাসন সূ্ত্রে জানা গিয়েছে, ইউরোপের বিভিন্ন শহরে সন্ত্রাসী হামলা হওয়ার পরেই বিভিন্ন জায়গায় কড়া নজরদারি চালাতে থাকে সিঙ্গাপুরের বিভিন্ন নিরাপত্তা সংস্থাগুলি। তল্লাশি চালানো হয় সোশ্যাল মিডিয়াতেও। এরপরই জানা যায় ১৪ সিঙ্গাপুরের নাগরিক ও ২৩ জন বিদেশির আচরণ সন্দেহজনক। যার মধ্যে আবার বেশিরভাগই বাংলাদেশি। বিভিন্ন সময়ে তাদের আচরণে সন্ত্রাসবাদের সঙ্গে যোগ থাকার আভাস পাওয়া গিয়েছে। সিঙ্গাপুরের ১৪ জনের মধ্যে ১০ জন পুরুষ ও চার জন মহিলা। তাদের বয়স ১৯ থেকে ৬২ বছরের মধ্যে। আর বিদেশিদের মধ্যে ১৫ জনই বাংলাদেশি। মোট ৩৭ জনের উপর নজর রাখতে রাখতে আহমেদ ফয়সলের আচরণ সবথেকে সন্দেহজনক বলে মনে করেন আধিকারিকরা।

গত ২ নভেম্বর ওই যুবককে সন্ত্রাসবাদ সংক্রান্ত কার্যকলাপের সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিযোগে ইন্টারনাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট এর অধীনে গ্রেপ্তার করে সিঙ্গাপুর পুলিশ। এরপর তাকে জেরা করে জানা যায়, বাংলাদেশে ফিরে হিন্দুদের উপর আক্রমণ চালানোর জন্য সে একটি অত্যাধুনিক ছুরি কিনেছে। এছাড়া কাশ্মীরে গিয়ে ইসলামের শত্রুদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করার পরিকল্পনা নিয়েছে। ২০১৭ সালে সিঙ্গাপুরে একজন নির্মাণ শ্রমিক হিসেবে কাজ করতে আসা ২৬ বছরের ওই যুবকের মনে ইসলামিক মৌলবাদের প্রতি আকর্ষণ জন্মে ছিল ২০১৮ সালে। 

নেটদুনিয়ায় আইএসআইএস জঙ্গিদের কার্যকলাপের ভিডিও দেখে তাদের জীবনদর্শনকেই আদর্শ হিসেবে বেছে নিয়েছিল। আর তাই সিরিয়ায় গিয়ে আইএসআইএস জঙ্গিদের কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে জেহাদের মাধ্যমে খিলাফত তৈরির স্বপ্ন দেখত। ইসলামবিরোধীদের খতম করার পরিকল্পনা করত। এমনকী নিজের কষ্টার্জিত অর্থ থেকে প্রচুর টাকা আইএসআইএস জঙ্গিদের তহবিলে দানও করেছিল আহমেদ ফয়সল। এর পাশাপাশি সে সমর্থন করত আল কায়দা এবং আল সাবাব জঙ্গিদের কার্যকলাপকেও।

পাঠকের মন্তব্য