বিশ্ব ফুটবলে নক্ষত্রপতন; শোকস্তব্ধ বিশ্ব

বিশ্ব ফুটবলে নক্ষত্রপতন; শোকস্তব্ধ বিশ্ব

বিশ্ব ফুটবলে নক্ষত্রপতন; শোকস্তব্ধ বিশ্ব

বিশ্ব ফুটবলে নক্ষত্রপতন। প্রয়াত ফুটবলের রাজপুত্র দিয়েগো মারাদোনা। আর্জেন্টিনার স্থানীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে এই খবরই পাওয়া গিয়েছে।

জানা যায়, বুধবার নিজের বাড়িতে থাকাকালীনই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত হন তিনি। বিশ্বজয়ী কিংবদন্তি ফুটবল তারকার প্রয়াণের খবর যেন এখনও মেনে নিতে পারছে না বিশ্ব। 

তিনি ফুটবলের ঈশ্বর। পায়ের জাদুতে মুগ্ধ করেছেন গোটা বিশ্বকে। শুধু তো ফুটবলার হিসেবে নয়, কোচ হিসেবেও তিনি উজার করে দিয়েছিলেন নিজেকে। কিন্তু গত কয়েক মাস ধরেই অসুস্থ ছিলেন আর্জেন্টাইন কিংবদন্তি। 

নিজের ৬০ তম জন্মদিন পালনের কয়েকদিন পরই অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন মারাদোনা। তড়িঘড়ি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় তাঁকে। প্রথমে শোনা গিয়েছিল, মারাদোনা হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছেন। তাঁর শরীরে করোনার প্রভাবও রয়েছে। সেসব গুজব উড়িয়ে দিয়ে তাঁর চিকিৎসক লিপোলদো লুকি জানান, মারাদোনার শরীরে করোনার কোনও লক্ষণ পাওয়া যায়নি। তিনি হৃদরোগেও আক্রান্ত হননি। তাঁর অসুস্থতা ততটা গুরুত্বপূর্ণ নয়। আসলে বেশ কিছুদিন ধরেই মানসিক সমস্যায় ভুগছেন তিনি। তাঁকে গ্রাস করেছে অবসাদ। যার প্রভাব পড়ছে তাঁর শরীরের উপরও।

পরে জানা যায়, তাঁর মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হচ্ছিল। তাই অস্ত্রোপচার করা হয়েছে। তারপর থেকে হাসপাতালেই ভরতি ছিলেন ফুটবল রাজপুত্র। তাঁর স্বাস্থ্য নিয়ে উদ্বেগে ছিল গোটা বিশ্বের ফুটবল মহল। লা প্লাতার সেই হাসপাতালের বাইরে রোজ জড়ো হতেন অনুগামীরা। অবশেষে নভেম্বরের দ্বিতীয় সপ্তাহে হাসপাতাল থেকে রিহ্যাব সেন্টারে নিয়ে যাওয়া হয় দিয়েগোকে। চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন, অনেকটাই সুস্থ তিনি। তবে তাঁর অ্যালকোহল নির্ভরতা ছাড়ানো প্রয়োজন। রিহ্যাব থেকে বাড়িও ফিরেছিলেন বলে খবর। কিন্তু বুধবারই এল দুঃসংবাদ। ১৯৮৬ বিশ্বকাপ জয়ী মহাতারকা নেই, এখনও যেন বিশ্বাস করতে পারছেন না কেউ।

পাঠকের মন্তব্য