স্ত্রীর প্রথম বিয়ে জেনে যাওয়ায় হত্যা করেছে পাষন্ড স্বামী

স্ত্রীর প্রথম বিয়ে জেনে যাওয়ায় হত্যা করেছে পাষন্ড স্বামী

স্ত্রীর প্রথম বিয়ে জেনে যাওয়ায় হত্যা করেছে পাষন্ড স্বামী

কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে স্ত্রীর প্রথম বিয়ে জেনে যাওয়ায় হত্যা করেছে এক পাষন্ড স্বামী। শশুড় বাড়িতে মোবাইল ফোনে আত্মহত্যার কথা জানিয়ে আত্নগোপন করেছে ঘাতক স্বামী। 

নিহত সুমীর (২৬) পিতা আব্দুল হালিম জানান, ২০১৭ সালে কুমারখালী শিলাইদহ ইউনিয়নের কসবা গ্রামের মৃত আজমত আলীর ছেলে বাবলু ওরফে বাবুর সাথে তার মেয়ের বিয়ে হয়। বিয়ের সময় সুমীর প্রথম বিয়ের কথা গোপন রাখেন তারা। বিষয়টি কিছুদিন পর জানাজানি হলে বাবলু তার মেয়ের উপর নির্যাতন করতে থাকে। গত ২৪ নভেম্বর বাবলু তাকে ফোনে জানায় সুমীকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। এই সংবাদ শুনে তার বড় ছেলেকে  বাবলুর বাড়িতে পাঠান মেয়েকে খুঁজতে। খোঁজাখুঁজি করে না পাওয়া গেলে  তিন বছরের নাতনীকে খোকসা গোপগ্রাম তাদের বাড়িতে নিয়ে আসে তার ছেলে। বৃহস্পতিবার সকালে তার জামাই বাবলু ফোনে আবার জানায় তার মেয়ে আত্মহত্যা করেছে। তিনি জানান তার মেয়েকে ২৪ নভেম্বর বাবলু মেরে ফেলেছে। 

এ বিষয়ে কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মজিবুর রহমান জানান, বাবলু তার স্ত্রীর প্রথম বিয়ের বিষয়টি জানার পর থেকেই নির্যাতন করতো বলে এলাকাবাসী জানান। বাবলুর মা মেয়ের বাড়ি থেকে গতকাল বাড়িতে এসে আজ সকালে তার পাশের রুমের ঘরের আড়ার সাথে সুমীর ঝুলন্ত লাশ দেখতে পান। বাবলু পলাতক রয়েছে। তিনি জানান লাশ পোস্ট মর্টেম হবার পর জানা যাবে হত্যা না আত্মহত্যা।বর্তমানে অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

পাঠকের মন্তব্য