লালপুরে মাইকিং করে মাছের দোকানে হালখাতা

লালপুরে মাইকিং করে মাছের দোকানে হালখাতা

লালপুরে মাইকিং করে মাছের দোকানে হালখাতা

মাছের দোকানে বাঁকি টাকা তুলতে মাইকিং করে এক ব্যাতিক্রমী হালখাতার আয়োজন করেছে পাঁচি বেগম (৪৫) নামের এক মাছ বিক্রেতা। তবে সে পাঁচি বুবু নামেই এলাকায় পরিচিত। শনিবার (২৩ জানুয়ারি) ব্যাতিক্রমী এই হালখাতার আয়োজন করা হয়েছে নাটোরের লালপুর উপজেলার ওয়ালিয়া বাজারে।

সকাল থেকে পাঁচি বুবু নামের এই মাছ বিক্রেতা তার দোকানের বাঁকি টাকা তুলতে ওয়ালিয়া গ্রামে মাইকিং করে। মাইকে বলা হয়,'সু-খবর,সু-খবর। পাঁচি বুবুর মাছের দোকানে হালখাতা। যে সকল ভাইয়েরা পাঁচি বুবুর দোকানে বাঁকিতে মাছ খেয়েছেন তাদের হালখাতা করার জন্য বলা হলো।'

শনিবার বেলা সাড়ে ৩ টার দিকে ওয়ালিয়া মাছ বাজারে গিয়ে দেখা যায় মাছ ব্যবসায়ী পাঁচি বেগম তার দোকানে রঙ্গীন চাঁদোয়া ও লাল-নিল আলোক সঞ্জা দিয়ে প্যান্ডেল সাজিছেন। যারা তার দোকানে হালখাতা করছেন তাদের তিনি মিষ্টি মুখ করাচ্ছেন।

ব্যাতিক্রমী এই হালখাতা সম্পর্কে জানতে চাইলে পাঁচি বুবু নামে পরিচিত এই মাছ ব্যবসায়ী জানান, 'তিনি গরীব একজন মাছ ব্যবসায়ী। জিবিকার তাগিদে তিনি এই মাছের ব্যবসা করেন। তার দোকন থেকে অনেকে মাছ বাঁকিতে কিনেছেন। তার দোকানে এখন মোট বাঁ ৫০ হাজার টাকা। কিন্তু বাঁকি টাকা চাইলে খরিদ্দাররা তারা আর টাকা দিতে চায়না। অনেক কে হালখাতার কার্ড দিলে তার বলে তাদের মনে নেই। তাই তিনি এই বাঁকি টাকা তুলতে মাইকিং করে সকলকে জানাচ্ছেন।'

পাঠকের মন্তব্য