কোভিড-১৯ কেড়ে নিল এএসপি তন্বীর জীবন

কোভিড-১৯ কেড়ে নিল এএসপি তন্বীর জীবন

কোভিড-১৯ কেড়ে নিল এএসপি তন্বীর জীবন

কোভিড-১৯ পরবর্তী শারীরিক জটিলতার (Post Covid-19 Complications) কারনে বাংলাদেশ পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার ইসরাত জাহান তন্বী মৃত্যুবরণ করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৩২ বছর। তিনি ১১ এপিবিএন, উত্তরাতে কর্মরত ছিলেন। 

তরুণ ও মেধাবী এই পুলিশ কর্মকর্তার এমন অকাল মৃত্যুতে বাংলাদেশ পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল ড. বেনজীর আহমেদ, বিপিএম (বার) গভীর শোক জানিয়েছেন। এক শোকবার্তায় আইজিপি বলেন, মৃত্যু অবধারিত। কিন্তু একজন পুলিশ কর্মকর্তার এমন অকাল মৃত্যু দুঃখজনক। তিনি মরহুমার শোকসন্তপ্ত পরিবারকে এই শোক কাটিয়ে ওঠার সাহস যোগাতে এবং মরহুমার বেহেস্ত নসিব করার জন্য আল্লাহর দরবারে প্রার্থনা করেন। 

বাংলাদেশ পুলিশের ৩৪ তম বিসিএস ব্যাচের মেধাবী এই কর্মকর্তা সরকারি দায়িত্ব পালনকালে সাম্প্রতিক সময়ে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হন। তিনি করোনাকে জয় করে অর্পিত দায়িত্ব পালনের জন্য পুনরায় কাজে যোগ দেন। কিন্তু করোনার ভয়াল থাবায় তার ফুসফুস সংক্রামিত হয়ে যায়। করোনা চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হলেও পরবর্তী সময়ে একে একে তাঁর শরীরে নানা ধরনের জটিলতা দেখা দিতে থাকে। অবস্থার অবনতি হলে সর্বশেষ গত ১৬ জানুয়ারি ২০২১ খ্রিঃ তাঁকে আসগর আলী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় গতকাল সকাল থেকে অবস্থার অবনতি হতে থাকলে তাঁকে আইসিইউতে নেওয়া হয়। সেখানেই আজ ২৫ জানুয়ারি ২০২১ খ্রিঃ সোমবার বেলা ১১ টা ২৫ মিনিটে এএসপি ইসরাত জাহান তন্বী শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। 

আজ বিকাল ৩ টায় রাজারবাগ পুলিশ লাইন্সের শহীদ শিরু মিয়া মিলনায়তনে এএসপি ইসরাত জাহান তন্বীর জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত জানাজার নামাজে ঢাকাস্থ সকল পুলিশ ইউনিটের এএসপি থেকে তদুর্ধ্ব কর্মকর্তারা অংশগ্রহণ করেন। তাঁরা মরহুমার রুহের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করেন। পরবর্তীতে এএসপি ইসরাত জাহান তন্বীর কফিনে সশস্ত্র সালাম প্রদর্শন ও ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়। ঢাকার ধামরাইয়ে পারিবারিক কবরস্থানে তাঁকে দাফন করা হবে। 

ইসরাত জাহান তন্বী ২০১৬ সালে ৩৪ তম বিসিএসের মাধ্যমে বাংলাদেশ পুলিশে সহকারী পুলিশ সুপার হিসেবে যোগদান করেন। তিনি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগ থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। ১১ এপিবিএন, উত্তরাতে যোগদানের পূর্বে তিনি মানিকগঞ্জ জেলায় সহকারী পুলিশ সুপার (প্রবেশনার) হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

পাঠকের মন্তব্য