মিয়ানমার সেনাবাহিনীর ওপর নিষেধাজ্ঞা যুক্তরাজ্য ও কানাডার 

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর ওপর নিষেধাজ্ঞা যুক্তরাজ্য ও কানাডার 

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর ওপর নিষেধাজ্ঞা যুক্তরাজ্য ও কানাডার 

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর ওপর নিষেধাজ্ঞা দিলো যুক্তরাজ্য ও কানাডা। অভ্যুত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতা দখল এবং মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগে বৃহস্পতিবার গৃহীত হলো এ পদক্ষেপ।

কানাডার নিষেধাজ্ঞার তালিকায় রয়েছেন ৯জন সেনা জেনারেল।

অন্যদিকে, ব্রিটেন ১৬ জনকে তালিকাভুক্ত করলেও নাম প্রকাশ করেছেন তিনজনের। তারা হলেন- জান্তা প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেনারেল মিয়া তুন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সো তুত এবং স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী থান লাইং।

এর আগে, ১১ ফেব্রুয়ারি জান্তা প্রধানসহ ১০ সামরিক কর্মকর্তার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে যুক্তরাষ্ট্র।

এদিকে মিয়ানমারের বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণে আগামী সোমবার জরুরি বৈঠকে বসবে ইইউ জোট। ফেব্রুয়ারির ১ তারিখ ঘটা অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে উত্তাল মিয়ানমার। সেসব দমনে ধরপাকড়সহ নানা কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করছে সেনা সরকার।

ব্রিটেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডমিনিক রাব বলেন, মিয়ানমারের সামরিক অভ্যুত্থানে আমরা হতভম্ব। তাই দেশটির ১৬ ব্যক্তির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করলো যুক্তরাজ্য। ইউরোপীয় মিত্রদের বলবো- অন্যায় আচরণ প্রতিরোধে এগিয়ে আসুন। দ্রুত দেশটির গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা ফেরানো প্রয়োজন। একইসাথে, মানবাধিকার লঙ্ঘনের সাথে জড়িতদের করা উচিৎ জবাবদিহিতার মুখোমুখি।

পাঠকের মন্তব্য