কুড়িগ্রামে সরকারি গাছের ডাল কর্তনের অভিযোগ 

কুড়িগ্রামে সরকারি গাছের ডাল কর্তনের অভিযোগ 

কুড়িগ্রামে সরকারি গাছের ডাল কর্তনের অভিযোগ 

কুড়িগ্রামের চিলমারীতে সরকারি রাস্তার গাছের ডাল কর্তন করার অভিযোগ উঠেছে। বিষয়টি নিয়ে জনমনে তৈরি হয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া।

জানা যায়, গত সপ্তাহে মাটিকাটা মোড় কেসি সড়কে খানকা শরিফের সামনে কুড়িগ্রাম জেলা পরিষদের এন্টি কড়াই গাছের ডাল ক্ষমতার প্রভাব খাটিয়ে কেটে নিয়ে যায় দূর্বৃত্ত্বরা। পরে স্থানীয় কাঠ ব্যবসায়ী ফরিদুলের কাছে তা বিক্রি করে। কাঠ ব্যবসায়ী ফরিদুল গাছ নিয়ে রমনা রেল ষ্টেশন এলাকায় 'ছ' মিলে রাখেন। পরে বিষয়টি জানাজানি হলে পুলিশ ছমিলে যান। 'ছ' মিল মালিক রফিকুল ইসলাম পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যায়। পরে মালিককে না পেয়ে পুলিশ ফিরে আসে।

স্থানীয়রা জানান, ক্ষমতার প্রভাব খাটিয়ে একদল যুবক দিনে দুপুরে গাছের বিশাল আকৃতির ডাল কর্তন করেন।যার আনুমানিক মূল্য ৭০-৮০হাজার টাকা। ঘটনায় জড়িত সিন্ডিকেট চক্রটির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার দাবী জানান এলাকাবাসী।

'ছ' মিল মালিক রফিকুল ইসলাম জনান, ছ' মিলে কয়েকটি গুল রেখেছেন কাঠ ব্যবসায়ী মাটিকাটা মোড়ের ফরিদুল ইসলাম। আমি তো জানি না, এই গাছের কি সমস্যা তাই যে গাছের গুল রেখেছেন তাকে খবর দিয়েছি নিয়ে যাওয়ার জন্য। কাঠ ব্যবসায়ী ফরিদুল ইসলামের সাথে ফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

চিলমারী মডেল থানার ওসি আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, লিখিত পেলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ ব্যাপারে জেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ফরিদুল ইসলাম জানান, গাছের ডাল কর্তনের বিষয়টি জেলা পরিষদের সদস্য রেজাউল করিম লিচুর মাধ্যমে জানতে পারি।পরে ঘটনাস্থলে সার্ভেয়ার পাঠানো হয়েছিলো। গাছের গুলগুলো উদ্ধার করে চিলমারী ডাক বাংলো তে রাখা হয়েছে। যারা এঘটনায় জড়িত তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পাঠকের মন্তব্য