হালুয়াঘাটে শিক্ষকের বিরুদ্ধে সরকারি সম্পত্তি দখলের অভিযোগ 

হালুয়াঘাটে শিক্ষকের বিরুদ্ধে সরকারি সম্পত্তি দখলের অভিযোগ 

হালুয়াঘাটে শিক্ষকের বিরুদ্ধে সরকারি সম্পত্তি দখলের অভিযোগ 

ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট উপজেলার ধারা বাজারের প্রাণ কেন্দ্র মুরগী মহালে বাইপাস রাস্তার ওপর প্রায় কোটি টাকার এলজিইডির অধিগ্রহনকৃত জমি দখল করে অবৈধ ভাবে স্থাপনা নির্মানের অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় প্রভাবশালী ধারা গ্রামের মৃত শামসুজ্জামান খান এর পুত্র উত্তর মাঝিয়াইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক আনিসুর রহমান চন্দন এর বিরুদ্ধে।

এলজিইডির অধিগ্রহনকৃত জমি দখল করে স্থাপনা নির্মাণ করায় সড়কে যানবাহন ও সর্বসাধারণের চলাচলের পথে বাধা সৃষ্টি করায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করতে মাঝিয়াইল গ্রামের তানভীর আহাম্মেদ বুলবুল গত বছরের এপ্রিল মাসে স্থানীয় সাংসদ জুয়েল আরেং ও ধারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমেদ বিপ্লব এর সুপারিশসহ জেলা প্রসাশক বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। উক্ত অভিযোগের প্রেক্ষিতে গত বছরের ২৯ ডিসেম্বর উপজেলা প্রকৌশলী শান্তনু ঘোষ সাগর উক্ত জমিটির সীমানা নির্ধারণ করার জন্য সহকারী কমিশনার ভূমি বরাবরে লিখিত আবেদন করেন। তার ধারাবাহিকতায় চলতি বছরের ১৭ ফেব্রয়ারি উক্ত জমিটির পরিমাপ করে সীমানা নির্ধারণ করা হয়। 

এ ঘটনার পর আনিসুর রহমান চন্দন সরকারি সম্পত্তি দখল করতে জোরপূর্বক অবৈধ ভাবে স্থাপনা নির্মাণ করছেন। এলজিইডির অধিগ্রহনকৃত সরকারি সম্পত্তি উদ্ধার করতে গত ১৯ সেপ্টেম্বর হালুয়াঘাট উপজেলা প্রকৌশলী মাফুজুর রহমান ধারা-নালিতাবাড়ী এলজিইডি বাইপাস রোডে অধিগ্রহণকৃত রাস্তার সীমানায় অবৈধ স্থাপনা অপসারণ করতে সহকারি কমিশনার ভূমি বরাবর লিখিত আবেদন করেন। পাশাপাশি স্থানীয় জাতীয় সংসদ সদস্য জুয়েল আরেং, ময়মনসিংহ জেলা প্রসাশক, নির্বাহী প্রকৌশলী ময়মনসিংহ, উপজেলা নির্বাহী অফিসার হালুয়াঘাট ও ধারা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বরাবর অনুলিপি প্রেরণ করেন। সকল আবেদন পত্রে এলজিইডির অধিগ্রহনকৃত জমি দখল করে স্থাপনা নির্মাণ করে ব্যক্তিগত স্বার্থসিদ্ধি করছেন এবং সড়কে যানবাহন ও সর্বসাধারণের চলাচলের পথে বাধা সৃষ্টি করায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করতে বিশেষ ভাবে অনুরোধ করা হয়েছে।

এ বিষয়ে উত্তর মাঝিয়াইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আনিসুর রহমান চন্দন এ প্রতিবেদককে মুঠোফুনে জানান, যে জায়গায় তিনি স্থাপনা নির্মাণ করছেন সেই জমিটি তার ব্যক্তিগত বলে দাবী করেন। তিনি সরকারি সম্পত্তি দখল করেন নি বলে জানান।
 
এ বিষয়ে সহকারি কমিশনার (ভুমি) তৌহিদুর রহমান এ প্রতিবেদককে বলেন, হালুয়াঘাট উপজেলা প্রকৌশলী মাফুজুর রহমান ধারা-নালিতাবাড়ী এলজিইডি বাইপাস রোডে অধিগ্রহণকৃত রাস্তার সীমানায় অবৈধ স্থাপনা অপসারণ করতে একটি পত্র প্রেরণ করেছেন। উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে শিঘ্রই আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার রেজাউল করিম বলেন, জেলা প্রশাসন থেকে নির্দেশনা পেলেই অবৈধ স্থাপনা অপসারণ করতে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। এ বিষয়ে এলজিইডি ময়মনসিংহ এর নির্বাহী প্রকৌশলী শহীদুজ্জামান খাঁন এ প্রতিবেদককে জানান, ধারা-নালিতাবাড়ী এলজিইডির বাইপাস রোডে অধিগ্রহণকৃত রাস্তার সীমানায় অবৈধ স্থাপনা অপসারণ করতে উপজেলা প্রকৌশলী স্থানীয় প্রশাসন বরাবরে একটি পত্র প্রেরণ করেছেন। বিষয়টি তিনি অবগত আছেন। শিঘ্রই উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করবেন বলে জানান।

পাঠকের মন্তব্য