হালুয়াঘাটে শিক্ষকের বিরুদ্ধে সাংবাদিক সম্মেলন

হালুয়াঘাটে শিক্ষকের বিরুদ্ধে সাংবাদিক সম্মেলন

হালুয়াঘাটে শিক্ষকের বিরুদ্ধে সাংবাদিক সম্মেলন

ময়মনসিংহের ঐতিহ্যবাহী হালুয়াঘাট প্রেসক্লাবে ভাষা শহীদ আব্দুল জব্বার স্মৃতি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মান্নান এর বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়ম ,দুর্নীতির বিষয় নিয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করেছেন গাজিরভিটা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও চেয়ারম্যান মোঃ দেলোয়ার হোসেন। তিনি সোমবার বিকালে (১১ অক্টোবর) প্রেসক্লাব কার্যালয়ে লিখিত বক্তব্যে দুর্নীতি ও অনিয়মের বিষয়গুলি তোলে ধরেন। লিখিত বক্তব্য নিন্মরুপ।

প্রিয় সাংবাদিক বৃন্দ, আমি মোঃ দেলোয়ার হোসেন, চেয়ারম্যান ৫নং গাজিরভিটা ইউনিয়ন পরিষদ, হালুয়াঘাট ময়মনসিংহ। আমি আপনাদের হালুয়াঘাট প্রেসক্লাবে উপস্থিত হয়ে লিখিত বক্তব্য দিতেছি যে, ১৯৮০ ইং সনে হালুয়াঘাট আর্দশ উচ্চ বিদ্যালয়ে ৮ম শ্রেণীতে লেখাপড়া করার সময় বাংলাদেশ ছাত্রলীগে যোদান করে সুনামের সাথে দ্বায়িত্ব পালন করেছি, ১৯৯১ সনে বাংলাদেশ যুবলীগে ও ১৯৯৮ সন থেকে গাজিরভিটা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও থানা আওয়ামীলীগের সন্মানিত সদস্য হিসেবে অদ্যবধি সততার সহিত দ্বায়িত্ব পালন করে আসচ্ছি। একাধারে প্রায় ৪ বার আওমীলীগের মনোনীত প্রার্থী হিসেবে নৌকা প্রতিক নিয়ে চেয়ারম্যান হিসেবে বিপুল ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী হয়ে জনগণের সেবা দিয়ে যাচ্ছি।

বিগত ২০১৩ সালে বিএনপি হতে আওয়ামীলীগে যোগদান করেন আব্দুল মান্নান, তিনি ভাষা শহীদ আব্দুল জব্বার স্মৃতি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মান্নান। পরবর্তী সময়ে থানা আওয়ামীলীগের সম্পাদক মরহুম খোরশেদ আলম ভূইয়া এর অনুরোধে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক পদে বহাল করি। এরপর থেকে হাইভ্রিট আওয়ামীলীগ হিসেবে উক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক নিয়োগ বাণিজ্য, দপ্তরী নিয়োগ বাণিজ্য, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বহুতল ভবন করে দেওয়ার নামে লক্ষ লক্ষ টাকা বাণিজ্য, বিদ্যুৎ মিটার নিয়ে গরীব মানুষদের জিম্মীকরে বাণিজ্য, ভূমি দস্যু হিসেবে এলাকায় সুপরিচিতি লাভ করে। এই সমস্ত অপকর্মে লিপ্ত হয়ে আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ বনে গেছেন তিনি। বতর্মান সময়ে কোটি কোটি কালো টাকার মালিক হয়েছেন তিনি। এই সমস্ত বিষয় নিয়ে যখন এলাকায় গগমেহনতি মানুষদের সাথে বিভিন্ন সময় কথাকাটা কাটি হয় এক পর্যায়ে বীর মুক্তিযোদ্ধা খালেককে লঞ্চিত করে। এ সমস্ত বিষয়ে তাকে ও মোক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোফাজ্বল হোসেনকে বাঁধা দিলে তারা আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করে ও সাংবাদিক সম্মেলন করে আমার মানহানিসহ আসন্ন ইউপি নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের মনোনয়নকে বাঁধাগ্রস্থ করতে অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। সকল অভিযোগের প্রমানপত্র স্বরুপ ছায়ালিপি সংযু্ক্তি করিলাম।

এ সময় বক্তব্য রাখেন, গাজিরভিটা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও চেয়ারম্যান মোঃ দেলোয়ার হোসেন, সূর্যপুর দাখিল মাদ্রাসার সুপার মোঃ আকবর আলী, কাতলমারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মফিজুল ইসলাম, মৃত মনতাজ আলী মুক্তিযোদ্ধার পুত্র ইদ্রিস আলী, মোঃ ফারুক মিয়া প্রমূখ। 

পাঠকের মন্তব্য