সড়ক দুর্ঘটনায় আহতের ঘটনা ভিন্নখাতে নেবার প্রচেষ্টা 

সড়ক দুর্ঘটনায় আহতের ঘটনা ভিন্নখাতে নেবার প্রচেষ্টা 

সড়ক দুর্ঘটনায় আহতের ঘটনা ভিন্নখাতে নেবার প্রচেষ্টা 

কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হবার ঘটনাকে ভিন্নখাতে নেবার  প্রচেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। রোববার কুষ্টিয়া -রাজবাড়ী আঞ্চলিক মহাসড়কের কাজীপাড়া এলাকায় অটোরিকশা ধাক্কা দিয়ে পথচারীকে আহত করে বলে জানা যায়। আহতের ভাইয়ের দাবী তার ভাইকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে আহত করা হয়েছে। বর্তমানে আহত ব্যক্তি ঢাকা চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

আহত ব্যক্তি উপজেলার কয়া ইউনিয়নের বারাদি গ্রামের মৃত রিয়াজুল ইসলামের ছেলে শহিদুল ইসলাম তুহিন। তিনি একজন এনজিও কর্মী ।

প্রত্যক্ষদর্শী রিকু জানান, ৭ তারিখ সকাল ৯ টার দিকে এনজিও কর্মী তুহিন হাতে কিছু কাগজপত্র নিয়ে পায়ে হেঁটে যাবার সময় বিপরিত দিকে থেকে আসা একটি অটোরিকশা তার কাঁধে ধাক্কা দিলে তিনি চিৎ হয়ে পড়ে গিয়ে মাথার পিছনে মারাত্মকভাবে আঘাতপ্রাপ্ত হন। এসময় স্থানীয়রা এবং ফায়ারসার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের কর্মিরা তাকে উদ্ধার করে কুমারখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। অটোচালককে আটকিয়ে পিটুনি দেবার প্রাক্কালে তাকে শারীরিক প্রতিবন্ধী দেখে ছেড়ে দেয়া হয়। 

এ বিষয়ে কুমারখালী ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সদস্যরা জানান, লোকজনের শোরগোল শুনে তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে জানতে পারেন একটি গাড়ি  পথচারীকে ধাক্কা দিয়ে আহত অবস্থায় ফেলে রেখে পালিয়েছে। সেসময় তারা আহত ব্যক্তিকে উদ্ধার করে কুমারখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। 

এ বিষয়ে কুমারখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে  সেসময়ের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. মহিশিউল আরেফিন রনি জানান, ফায়ারসার্ভিসের কর্মীরা আহত ব্যক্তিকে নিয়ে আসলে তার মাথার পিছনে দেড় ইঞ্চি বাই দেড় ইঞ্চি ক্ষত ছিলো। রোগী আনকনসিয়াস থাকার কারণে তার মুখ থেকে কিছু জানা যায়নি। সড়ক দুর্ঘটনায় আহত ছিলেন তিনি। রোগীর অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাকে কুষ্টিয়া সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। 

এ বিষয়ে আহতের ভাই আজিজুল জানান, যে অটোরিকশা তার ভাইকে ধাক্কা দেয় তার ঠিকানা পাওয়া গেছে। তার ভাই সুস্থ হলে ব্যবস্থা নিবেন। তিনি আরো জানান তার ভাইয়ের মাথার পিছনে হাতুড়ি ও হাতকোড়াল দিয়ে আঘাত করা হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান অটো রিকশা ধাক্কা দিয়েছে বললে তিনি কোন সদুত্তর দিতে পারেননি।

পাঠকের মন্তব্য