নির্বাহী প্রকোশলীর নিয়োগপত্র গ্রহন করলেন না রায়পুরের মেয়র 

মেয়র রুবেল ভাট

মেয়র রুবেল ভাট

লক্ষীপুর জেলার রায়পুর উপজেলার নির্বাচিত মেয়র রুবেল ভাট। প্রবাস ফেরত এই গিয়াস উদ্দিন রুবেল ভাট রায়পুর উপজেলায় এক আলোচিত নাম। প্রথমে আলোচনায় না থেকেও নমিনেশন লাভ করেন নৌকার টিকেটে। দারুন কৌশলে পরে উপজেলার নেতৃবৃন্দকে দিয়ে করান দারুন সমন্বয়। এরপর নির্বাচনে জয়ী হন বিশাল ব্যবধানে।সাফল্যের সাথে পরিচালনা করছেন পৌরসভার কাজকর্ম।কিন্ত বিতর্ক যেন ছাড়ছেই না পৌর মেয়র রুবেল ভাটকে।

অনেক চাপ সামলানো হয়েছে,তবে সামলানো যায় নি সমালোচনাকে। এবার বিতর্কে জড়িয়েছেন নির্বাহী প্রকোশলীর যোগদান পত্র গ্রহন না করে।এর কারনে সমালোচিত হচ্ছেন তিনি। রায়পুর পৌরসভার মেয়র হিসেবে দায়িত্বের ৫ মাস না পেরুতেই গিয়াস উদ্দিন রুবেল ভাটকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে স্থানীয় সরকার বিভাগ। 

১০ দিনের মধ্যে তাকে নোটিশের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

নির্বাহী প্রকৌশলীর যোগদানপত্র গ্রহণ না করার অভিযোগে উপ-সচিব মোহাম্মদ ফারুক হোসেন সোমবার (৮ নভেম্বর) এই কারণ দর্শানোর নির্দেশন দেন। একইসঙ্গে ওই পৌর সভার সকল উন্নয়ন কাজের বরাদ্দ বন্ধ রাখারও নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

স্থানীয় সরকার বিভাগ থেকে রায়পুর পৌরসভার সহকারী প্রকৌশলী জুলফিকার আহম্মেদকে নির্বাহী প্রকৌশলী পদে পদোন্নতি দিয়ে রায়পুর পৌর সভায় যোগদানের নির্দেশ দেয়া হয়। কিন্তু মেয়র এ যোগদানপত্র গ্রহণ না করায় জুলফিকার পার্শ্ববর্তী রামগঞ্জ উপজেলায় বদলি হয়ে যোগদান করেন।

পরে একই পদে ফদিরগঞ্জ উপজেলার নির্বাহী প্রকৌশলী নজরুল ইসলামকে রায়পুর পৌর সভায় যোগদানের নির্দেশ দেয় স্থানীয় সরকার বিভাগ। এই নির্দেশও গ্রহণ করেননি পৌর মেয়র গিয়াস উদ্দিন রুবেল ভাট। এতে বর্তমানে নির্বাহী প্রকৌশলী পদ শূন্য রয়েছে এই পৌর সভায়।

উক্ত বিষয়ে কথা বলতে চাইলে তিনি জানান, এ বিষয়ে পরে কথা বলবেন।

পাঠকের মন্তব্য