ইতালীর পথে ভুমধ্যসাগরে মাদারীপুরের তরুনের মৃত্যু, আহত ৬ 

ইতালীর পথে ভুমধ্যসাগরে মাদারীপুরের তরুনের মৃত্যু, আহত ৬ 

ইতালীর পথে ভুমধ্যসাগরে মাদারীপুরের তরুনের মৃত্যু, আহত ৬ 

আবারো অবৈধভাবে ইতালী যাবার সময় প্রাণহানী। এবার ঝড়োবাতাসে তিউনিউসিয়ার ভুমধ্যসাগরে থাকা অবস্থায় প্রচন্ড ঠান্ডায় মারা গেলো মাদারীপুরের তরুণ জয় তালুকদার। এ সময় গুরুতর অসুস্থ হয় একই এলাকার ৬জন। 

স্বজনরা জানায়, গত ২২ জানুয়ারি অবৈধভাবে সমুদ্রপথে লিবিয়া হয়ে ইঞ্জিনচালিত নৌকায় ইতালীর উদ্দ্যেশে রওয়ানা হয় মাদারীপুর সদর উপজেলার পেয়ারপুর গ্রামের জয়সহ একই গ্রামের বেশ কয়েকজন।  তিউনিসিয়ার ভুমধ্যসাগরে গেলে প্রবল ঝড়ো বাতাসের পর টানা ৬ ঘন্টা বৃষ্টি হয়। এ সময় নৌকার মাঝি কুলকিনারা হারিয়ে ফের। পরে ইতালীর পুলিশকে খবর দিলে তারা সবাইকে উদ্ধার করে। এ সময় অসুস্থ বেশ কয়েকজনকে হাসপাতালে নিয়ে যায় পুলিশ। এর আগেই প্রচন্ড ঠান্ডায় মারা যায় জয়। একই এলাকার মিন্টু, প্রদীপ, টুটুল, তন্ময়, রিয়াজ ও সবুজ এখনো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বলে জানিয়েছেন স্বজনরা।

এলাকাবাসী সূত্র জানায়, মাদারীপুর সদর উপজেলার বড়াইলবাড়ী গ্রামের সোনমিয়া খানের ছেলে জামাল খান এলাকার সহজসরল যুবকদের ইতালী নেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে প্রত্যেক পরিবারের কাছ থেকে নেয় ৭ লাখ টাকা করে। এই ঘটনার পর অভিযুক্ত দালাল জামাল খানের বাড়িতে গিয়েও তার কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি। দীর্ঘদিন ধরে জামাল মানবপাচারের সাথে জড়িত রয়েছে বলেও এলাকায় বেশ গুঞ্জনও রয়েছে।

নিহত জয়ের বাবা পলাশ তালুকদার বলেন, ধার দেনা করে সাত লাখ টাকা দিয়েছি জামালকে। আমার ছেলে মারা গেলে জামাল একটু খোঁজও নিলো না। মাদারীপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. কামরুল ইসলাম মিঞা জানান, পরিবারের কাছ থেকে অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

পাঠকের মন্তব্য