টুঙ্গিপাড়ায় গৃহীত একগুচ্ছ কর্মসূচিতে প্রশংসিত যুবলীগ

বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ

বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ

বেলাল আহমেদ ভূঞা অনিক : সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, স্বাধীনতার মহান স্থপতি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে টুঙ্গিপাড়ায় ‘হৃদয়ে পিতৃভূমি’ প্রতিপাদ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের কর্মসূচিতে আওয়ামী যুবলীগের গৃহীত পদক্ষেপ ও অনুষ্ঠানমালা ব্যাপক প্রশংসিত ও ফলপ্রসূ হয়েছে।

বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি বিজড়িত টুঙ্গিপাড়ায় ‘হৃদয়ে পিতৃভূমি’ প্রতিপাদ্যে আয়োজিত ২২ মার্চ বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কর্মসূচি সফল করার লক্ষ্যে ১০টি জেলার যুবলীগ প্রতিনিধিবৃন্দের সঙ্গে গত ১৪ মার্চ (গোপালগঞ্জ, ফরিদপুর, শরীয়তপুর, মাদারীপুর, রাজবাড়ী, নড়াইল, খুলনা, খুলনা মহানগর, বাগেরহাট ও পিরোজপুর) ২৩, বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউস্থ আওয়ামী লীগ এর দলীয় কার্যালয়ের হলরুমে (২য় তলায়) বিশেষ বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়।   

সভায় সভাপতিত্ব করেন যুবলীগ চেয়ারম্যান ও বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ শেখ ফজলে শামস পরশ। সভায় তিনি বলেন, তরুণ প্রজন্মকে বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে জানতে হবে এবং তার উদার, মানবিক ও অসাম্প্রদায়িক মূল্যবোধ ধারণ করতে হবে।

১৭ মার্চ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে সকালে ধানমন্ডি ৩২ নম্বরের ঐতিহাসিক বঙ্গবন্ধু ভবন প্রাঙ্গণে এবং দুপুরে টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতার সমাধিতে যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশের নেতৃত্বে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করে।

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে ২১ মার্চ গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া উপজেলার অডিটোরিয়ামে সমাজের পিছিয়ে পড়া ১ হাজার মানুষের মাঝে নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী ও বস্ত্র বিতরণ করে যুবলীগ। মানবিক কার্যক্রমের চলমান অংশ হিসেবে যুবলীগের গৃহীত এ কর্মসূচি টুঙ্গিপাড়ার আপামর জনসাধারণের কাছে উষ্ণ প্রশংসিত হয়েছে।

এদিন সন্ধ্যায় পুণ্যভূমি টুঙ্গিপাড়ায় যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশের উপস্থিতিতে দোয়া মাহফিল ও বিশেষ প্রার্থনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

২২ মার্চ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে ‘টুঙ্গিপাড়া: হৃদয়ে পিতৃভূমি’ প্রতিপাদ্যে আলোচনা সভা ও চলচ্চিত্র প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয় বঙ্গবন্ধু সমাধিসৌধ সংলগ্ন মাঠ, টুঙ্গিপাড়ায়। 

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন-স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল এমপি। সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শাজাহান খান এমপি। 

এছাড়া প্রধান আলোচক ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষক, বিশিষ্ট ইতিহাসবিদ অধ্যাপক ড. সৈয়দ আনোয়ার হোসেন এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ হোসেন রাসেল এমপি। 

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মানবিক যুবলীগের প্রবক্তা, শেখ ফজলে শামস পরশ। সঞ্চালক যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মো. মাইনুল হোসেন খান নিখিল। যুবলীগ চেয়ারম্যান তরুণ প্রজন্মকে শুধু দেশপ্রেমী নয়, বাঙালি সংস্কৃতি ও ইতিহাস অনুরাগী হওয়ার আহ্বান জানান। 

অনুষ্ঠানে ‘চিরঞ্জীব মুজিব’ চলচ্চিত্রটি প্রদর্শিত হয়। চৈত্রের উত্তাপ আর রোদকে উপেক্ষা করে গোপালগঞ্জ, ফরিদপুর, শরীয়তপুর, মাদারীপুর, রাজবাড়ী, নড়াইল, খুলনা, খুলনা মহানগর, বাগেরহাট ও পিরোজপুর থেকে প্রায় ২৫ হাজার নেতাকর্মী অনুষ্ঠানে যোগদান করে।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী বাঙালি জাতির ইতিহাসে এক অনন্য মাইলফলক; যা বর্তমান প্রজন্মের মনন, চিন্তা, আদর্শ ও দর্শনে প্রদীপ্ত শিখারূপে প্রবাহমান। জাতির এই মাহেন্দ্রক্ষণে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কর্তৃক গৃহীত কর্মসূচি সকল শ্রেণি-পেশা ও বর্ণের আপামর জনসাধারণের কাছে প্রশংসিত। এ এক অনন্য যুবলীগ।

বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক দর্শন ও আদর্শ, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, বাংলার যুবরাজনীতির স্বপ্নদ্রষ্টা শেখ মণির দেখানো স্বপ্নকে ধারণ করে মেধা, মনন ও তারুণ্যদীপ্ত সংগঠক শেখ ফজলে শামস পরশের সুদক্ষ নেতৃত্বে এক অনন্য উচ্চতায় অধিষ্ঠিত হচ্ছে মানবিক যুবলীগ।

লেখক: বেলাল আহমেদ ভূঞা অনিক; সহকারী অধ্যাপক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

পাঠকের মন্তব্য