টাকা চুরির অপবাদে কিশোরকে শিকলে বেঁধে নির্যাতন

টাকা চুরির অপবাদে কিশোরকে শিকলে বেঁধে নির্যাতন

টাকা চুরির অপবাদে কিশোরকে শিকলে বেঁধে নির্যাতন

পটুয়াখালীর গলাচিপায় টাকা চুরির অপবাদ দিয়ে মুন্না (১৬) নামের এক কিশোরকে শিকলে বেঁধে নির্যাতনের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার সদর ইউনিয়নের বোয়ালিয়া গ্রামে। নির্যাতনের পর থেকে নিখোঁজ রয়েছে ওই কিশোর।

জানা যায়, গত ৯ মে থেকে ১১ মে তিনদিন তাকে দফায় দফায় মারধর করা হয়েছে। মুন্না সদর ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ড শাহাজাহান কমান্ডারের ছেলে। এ ঘটনার পর থেকেই ওই কিশোর নিখোজ রয়েছে। 

প্রকাশিত ছবিতে দেখা যায়, কিশোর মুন্নাকে একটি গাছের সঙ্গে লোহার শিকলে বেঁধে রাখা হয়। পরে ৮৫ হাজার টাকা চুরির অপবাদ দিয়ে বোয়ালিয়া এলাকার হজরত আলী নামে এক ব্যক্তি তাকে বেধরক মারধর করছেন। এসময় আশপাশের লোকজন দাড়িয়ে বিষয়টি দেখছেন। কেউই এঘটনার প্রতিবাদ করেননি। ছবিতে মুন্নার শরীরে রক্তাত জখম হতেও দেখা গেছে। মুন্নার পরিবারের অভিযোগ গত ৯ মে থেকে ১১ মে মধ্যরাত পর্যন্ত দফায় দফায় মুন্নার উপর এ অমনাবিক নির্যাতন চালানো হয়। 

মুন্নার মা হাসিনা বেগম বলেন, তারা ঢাকায় থাকেন, মুন্না বাড়িতে থাকতো। খবর পেয়ে তারা বাড়িতে এসেছেন। তার ছেলেকে টাকা চুরির অপবাদ দিয়ে ধরে নিয়ে যাওয়া হয়। তাকে দফায় দফায় তিনদিন যাবৎ হজরত আলী, ফেরদৌস, মমতাজ এবং তানিয়া অমানবিন নির্যাতন করে। এরপর থেকে তার ছেলেকে খুঁজে পাচ্ছি না। 

এ বিষয়ে গলাচিপা থানার অফিসার ইনচার্জ এম আর সওকত আনোয়ার ইসলাম জানান, ঘটনার পর ওই কিশোর কৌশলে মোটরসাইকেল যোগে পালিয়ে গেছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত ৩জনকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছি। অভিযান অব্যাহত আছে পরে প্রেসব্রিফিং করে সকলের নাম জানানো হবে। তদন্তের স্বার্থে নাম বলা যাবে না। 

পাঠকের মন্তব্য