মাথা গোঁজার ঠাঁই হলো অসহায় সাহেব আলীর 

মাথা গোঁজার ঠাঁই হলো অসহায় সাহেব আলীর 

মাথা গোঁজার ঠাঁই হলো অসহায় সাহেব আলীর 

ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) থেকে আলমগীর হোসেন আসিফ : কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে গত ২৫ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার বিকালে শুরু হয় ঝরের তান্ডব। ফাগুনেই বৈশাখী ঝরের তান্ডব আর শিলাবৃষ্টিতে ব্যাপক ক্ষতি হয় সাহেব আলীর মাথা গোঁজার একমাত্র অবলম্বন বসত ঘরটির।

সাহেব আলীর বাড়ি উপজেলার ভাঙ্গামোড় ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের রাবাইতারি গ্রামে। আগে থেকেই জরাজীর্ণ অবস্থা ছিল সাহেব আলীর বসতঘরটির। তার উপর সেই দিনের ঝড়ে নড়বড়ে হয়ে যায় ঘরের কাঠামো। আর শিলাবৃষ্টিতে চালের টিনে তৈরি হয় হাজারো ফুটো। স্ত্রী ও দুই মেয়ে সহ ৪ সদস্যের পরিবার সাহেব আলীর। বৃদ্ধপ্রায় সাহেব আলীর (৬০) একার আয়ে চলতো সংসারের যাবতীয় খরচ। কিন্ত বয়সের ভারে তিনিও হারিয়েছেন কর্মক্ষমতা। আর তার ফলেই অভাবের যাঁতাকলে পৃষ্ঠ হতে থাকে গোটা পরিবার। পাশাপাশি অর্থাভাবে ক্ষতিগ্রস্ত বসত ঘরটি মেরামতের অভাবে গোটা পরিবার নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করতে হয় সাহেব আলীর। 

সাহেব আলীর জরাজীর্ণ ঘর ও পরিবারের মানবেতর জীবনযাপনের চিত্র তুলে ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সামর্থবান ব্যক্তি ও সেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠনের প্রতি সহায়তায় জন্য এগিয়ে আসার আহ্বান জানান বারাইতারি গ্রামের সেচ্ছাসেবক হাফেজ শফিক।

তার আহ্বানে সাড়া দিয়ে সাহেব আলীর বসতঘরটি মেরামতের জন্য এগিয়ে আসে ঢাকাস্থ সেচ্ছাসেবী সংগঠন গেইন পারপোস। সংগঠনটির তত্বাবধানে ১৭ মে সাহেব আলীর জরাজীর্ণ ঘরটির কাঠামো, খুটি, বেড়ার ও চালের টিন পরিবর্তন করে পুনঃনির্মাণ কাজ শেষ করা হয়। পুনঃনির্মাণের কাজ শেষে ১৮ মে বুধবার বিকালে আনুষ্ঠানিক ভাবে ঘরটি সাহেব আলীর নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে। 

এসময় উপস্থিত ছিলেন, মানবতার পুলিশ ক্ষ্যাত ফুলবাড়ী থানার এসআই শাহজালাল, সেচ্ছাসেবক হাফেজ শফিক, আলমগীর হোসেন আসিফ, নুরনবী মিয়া সহ এলাকার মান্যগন্য ব্যক্তিগন। 

পাঠকের মন্তব্য