জাবিতে আন্তর্জাতিক জাদুঘর দিবস উপলক্ষে সেমিনার

আন্তর্জাতিক জাদুঘর দিবস উপলক্ষে সেমিনার

আন্তর্জাতিক জাদুঘর দিবস উপলক্ষে সেমিনার

'আন্তর্জাতিক জাদুঘর দিবস-২০২২' উপলক্ষ্যে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে আয়োজিত হয়েছে বিশেষ সেমিনার৷ আন্তর্জাতিক জাদুঘর পরিষদ (আইকম) বাংলাদেশ, জাবির প্রত্নতত্ত্ব ও ইতিহাস বিভাগের যৌথ উদ্যোগে এই সেমিনার আয়োজিত হয়েছে। 

১৬ জুন (বৃহস্পতিবার) সকাল সাড়ে ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের জহির রায়হান মিলনায়তনের সেমিনার কক্ষে আয়োজিত সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন আন্তর্জাতিক জাদুঘর পরিষদ (আইকম) বাংলাদেশের সভাপতি ও প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক ড. সুফি মোস্তাফিজুর রহমান।  

সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে সংসদ সদস্য এবং সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি সিমিন হোসেন রিমি উপস্থিত থাকার কথা থাকলেও  অসুস্থতার জন্য সশরীরে উপস্থিত হতে পারেননি। মুঠোফোনে যুক্ত হয়ে তিনি উপস্থিত আলোচক, শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন একটি জাতির ইতিহাসে মিউজিয়াম একটি বড় রোল প্লে করে। জাদুঘরের সাথে মানুষের সংযোগ রাখা জরুরি। তরুণ সমাজ, শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের জাদুঘরের বিষয়ে শিক্ষা ও সচেতনতা বৃদ্ধির আহ্বান জানান। 

সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রো-ভিসি অধ্যাপক শেখ মোঃ মনজুরুল হক, ট্রেজারার অধ্যাপক রাশেদা আখতার, কলা ও মানবিক অনুষদের ডীন  অধ্যাপক ড. মো: মোজাম্মেল হক। 

উক্ত সেমিনারে  'পাওয়ার অব মিউজিয়াম' শিরোনামে বিশদ প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক সিকদার মোঃ জুলকারনাইন। 

প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. জয়ন্ত সিংহ রায় অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, "জাদুঘর প্রায় প্রতিটি দেশে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়,  চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের নিজস্ব জাদুঘর রয়েছে  কিন্তু অত্যন্ত দুঃখের সাথে বলতে হয় আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ে কোন জাদুঘর নেই।"

বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক মোহাম্মদ মোজাহিদুল ইসলাম বলেন, "আমাদের জাতীয়তাবাদী চিন্তা থেকে দূরে আসতে হবে। ইতিহাস যেমন ধনীর ইতিহাস তেমনি গরীবের ইতিহাস। জাদুঘর কেবলমাত্র জাতীয় পর্যায়ে না রেখে দেশের প্রতিটি অঞ্চলে আঞ্চলিক পর্যায়ে জাদুঘর গড়ে তুলতে হবে। তা না হলে আমরা আমাদের পূর্বের ইতিহাস সংরক্ষণ করতে পারবো না।"

কলা ও মানবিকী অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড.মোহাম্মদ মোজাম্মেল হক জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি নৃতাত্ত্বিক জাদুঘর স্থাপনের বিষয়ে উদ্যোগ গ্রহণের জন্য আহবান জানান।

ট্রেজারার অধ্যাপক রাশেদা আখতার বলেন, "জাদুঘর কোন বদ্ধ ঘরের বিষয় নয়। এটিকে ডিজিটালাইজেশন পদ্ধতির মাধ্যমে ছড়িয়ে দিতে হবে। তিনি আরো বলেন ইতিহাস, প্রত্নতত্ত্ব বিভাগ, নৃবিজ্ঞান বিভাগ ছাড়াও আমরা যদি আর কয়েকটি বিভাগ নিয়ে কালচারাল মিনিস্ট্রির কাছে আবেদন করি তবে একটি আশার আলো থাকবে বলে আমি মনে করি। আমার এ ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ সহযোগিতা থাকবে।"

এরপর আইকম বাংলাদেশের সদস্য ও প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে সেমিনারের সমাপ্তি হয়।  

পাঠকের মন্তব্য