আগ্রাসনকে জায়েজ বলা কোন কবির পক্ষে মানানসই নয় 

এম গোলাম ছারওয়ার, গবেষক ও কলামিস্ট 

এম গোলাম ছারওয়ার, গবেষক ও কলামিস্ট 

এম গোলাম ছারওয়ার  : রাশিয়া এখনো ইউক্রেনের সাথেই পারেনি। মাস কাভারি আমাদের আশ্বাস দিয়ে যাচ্ছে তারা 'এইতো ইউক্রেন দখল করে ফেলছে'। প্রতিটি থানারহাট টাইপের শহর দখল করে বলছে, এইতো বিশাল এক গুরুত্বপূর্ণ শহর দখল করে ফেলেছি। 

তো, যা বলছিলাম, রাশিয়ার মতো পরাশক্তি এখনো ইউক্রেনের লেজও দখল করতে পারেনি, মাথা বহু দূর। আমেরিকা এখনো সেখানে যাইওনি। আমাদের প্রিয় কবি গুণ দা এর ভিতরে বলে ফেললেন, আমেরিকা রাশিয়ার সাথে যুদ্ধে হেরে মানুষকে ভুলাতে নাসার তের কোটি বছরের পুরোনো পরীর গল্প বের করেছেন। 

আমি কোন এক অজ্ঞাত কারণে গুণের কবিতা পছন্দ করি। সেজন্যে সারা জীবন তাঁর পক্ষে কথাবার্তা বলে এসেছি। এখন আমি বিব্রত। কোথায় কি বলেছি, সেসব খুঁজে খুঁজে এখন কিভাবে লুকাই ?

পৃথিবীতে এখনো বহু মানুষ বিশ্বাসই করেনা, মানুষ আদতে চাঁদে গিয়েছিলো। নোয়াখালীর আমার এক ঘনিষ্ঠ সিনিয়ন আইনজীবী এখনো মোবাইল ব্যবহার করেন না। যৌবনে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ইউনিয়নের নেতা ছিলেন। তিনি এখন বিজ্ঞান মানেন না। এরকম বহু জ্ঞানী মানুষকে বয়স হলে বয়সের রোগে ধরে। তাই বলে বিজ্ঞান কি মিথ্যা হয়ে যাবে ?

গুণ দা ভালো কবি। ভালো কবিদের বাজারি হতে হয়না। বাজারে এলাইভ থাকার জন্যে উল্টাপাল্টা কথা বলে অস্তিত্বের জানান দিতে হয় রইসু টইসুদের। কিন্তু গুণ দা'কে কেন এমন পথ নিতে হবে ? 

জলিল. হিরো, রইসুকে যে পথে যেতে হয় কবিকে সে পথে যেতে হবে কেন ? প্রেমের কবিতার পুরোধা জন কিটসকে জীবিতকালে কেউ চিনতোই না সেভাবে। তাই বলে তিনি কি রইসু মার্কা কথা বলে বাজার ধরে ছিলেন ?

ভালো কবি টিকে যাবেন মহাকালে। কিন্তু নষ্ট হওয়া চলবেনা। আর একটা কথা। কার্যকারণ যাই হোক, শিশু ও নারী হত্যায় কোন কবির সমর্থন থাকতে পারেনা। আগ্রাসনে কোন কবির সমর্থন থাকতে পারেনা। এক আগ্রাসনের কারণে অন্য আগ্রাসনকে জায়েজ বলা কোন কবির পক্ষে মানানসই নয়। তাহলে তিনি আর কবি থাকেন না। হয়ে উঠেন শব্দ দাস। 

আমাদের হাজার হাজার বিজ্ঞানী নেই, হাজার হাজার কবি নেই। যে দু'চারটি আছে তারা যেন সুস্থ থাকে। এদের মাথাটা গেলে আমাদের আর থাকলো কি ?

ফেসবুক স্ট্যাটাস লিঙ্ক : Md Golam Sarwar
লেখক : গবেষক ও কলামিস্ট 

পাঠকের মন্তব্য