গত ২০ দিনে সারাদেশে ১,৭০,০৩২টি গাছ লাগিয়েছে যুবলীগ

গত ২০ দিনে সারাদেশে ১,৭০,০৩২টি গাছ লাগিয়েছে যুবলীগ

গত ২০ দিনে সারাদেশে ১,৭০,০৩২টি গাছ লাগিয়েছে যুবলীগ

বঙ্গবন্ধুকন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা ১৯৮৫ সালের ১ আষাঢ় থেকে সমগ্র বাংলাদেশে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি গ্রহণ এবং তা বাস্তবায়ন করে আসছেন। তখনও বিশ্বে জলবায়ু পরিবর্তনের বিষয়টি আসেনি। 

কিন্তু বঙ্গবন্ধুকন্যা রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা দেশের কথা চিন্তা করে, দেশের মানুষের কথা চিন্তা করে, পরিবেশের কথা চিন্তা করে এ পদক্ষেপ গ্রহণ করেন। তিনি দেশের সবাইকে নির্দেশনা দেন যে-আপনারা অন্তত তিনটা করে গাছ লাগাবেন। একটা করে ফলের গাছ, একটা করে কাঠের গাছ এবং একটা করে ভেষজ গাছ।

জলবায়ু পরিবর্তনের অভিঘাত থেকে দেশকে রক্ষা করতে হলে সবুজ বাংলাকে আরও সবুজ করতে হবে। তারই ধারাবাহিকতায় রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার নির্দেশে গত ২০ জুন, ২০২২খ্রি: তারিখে হাতিরঝিলের প্লাটিনাম পার্কে দেশব্যাপী বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির শুভ উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস্ পরশ। 

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস্ পরশ ও সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মোঃ মাইনুল হোসেন খান নিখিল যুবলীগের সর্বস্তরের নেতা-কর্মী, শুভানুধ্যায়ী সকলকে আষাঢ়-শ্রাবণ-ভাদ্র এই তিন মাসব্যাপী কমপক্ষে একটি ফলজ, একটি বনজ ও একটি ভেষজ গাছ লাগানোর আহ্বান জানান।

যুবলীগ চেয়ারম্যান ও সাধারণ সম্পাদকের ঘোষণা অনুযায়ী জুন মাসের ২০ তারিখ থেকে জুলাই মাসের ১৬ তারিখ পর্যন্ত যুবলীগের নেতা-কর্মীরা দেশের বিভিন্ন স্থানে প্রায় ১ লক্ষ ৭০ হাজার ৩২ টি বৃক্ষরোপণ করেছে এবং বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি অব্যাহত রয়েছে। যুবলীগের কোন ইউনিট কি পরিমাণ বৃক্ষরোপণ করছে কেন্দ্রীয় যুবলীগের দপ্তর শাখা থেকে নিয়মিত মনিটরিং করে তার তালিকা সংগ্রহ করা হচ্ছে। প্রতি ১৫ দিন অন্তর অন্তর তার পূর্ণাঙ্গ তালিকা প্রকাশ করা হবে। 

ইতোমধ্যে কেন্দ্রীয় যুবলীগ ২,০০০টি, ঢাকা মহানগর যুবলীগ উত্তর ৫,০০০টি, ঢাকা মহানগর যুবলীগ দক্ষিণ ৩,০০০টি, বাগেরহাট জেলা ৮,৫০০ টি, ঝিনাইদহ জেলা ৫,০০০ টি, কুষ্টিয়া জেলা ১৭,৫০০ টি, চুয়াডাঙ্গা জেলা ৭,০০০ টি, যশোর জেলা ৬০০টি, নড়াইল জেলা ১০,০০০ টি, মাগুড়া জেলা ৫,০০০টি, নওগাঁ জেলা ১,০০০টি, পাবনা জেলা ৫,০০০টি, বগুড়া জেলা ৫০০টি, গাইবান্ধা জেলা ৫,০০০ টি, কুড়িগ্রাম জেলা ২,৫০০ টি, দিনাজপুর জেলা ৮০০টি, রাজশাহী জেলা ১,৫০০টি, নীলফামারী জেলা ২,০০০টি, মানিকগঞ্জ জেলা ৬,৪৫০টি, গাজীপুর মহানগর ১০,০০০টি, টাঙ্গাইল জেলা ৮,০০০টি, জামালপুর জেলা ২,০০০টি, শেরপুর জেলা ২,৫০০টি, ময়মনসিংহ মহানগর ৫,০০০টি, ফরিদপুর জেলা ৭০০টি, মুন্সিগঞ্জ জেলা ৩,৫০০টি, কুমিল্লা মহানগর ১,৭৮২টি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ৫,০০০টি, ফেনী জেলা ৮,৪০০টি, নোয়াখালী জেলা ২০,০০০টি, লক্ষ্মীপুর জেলা ৪,৫০০টি, চাঁদপুর জেলা ২,০০০টি, কুমিল্লা উত্তর জেলা ৬,০০০টি, কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা ১,৩০০টি, বরগুনা জেলা ১,০০০টি বৃক্ষরোপণ করা হয়েছে। নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে।

পাঠকের মন্তব্য