কাতার বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলবে ফ্রান্স ও ব্রাজিল ! 

ফ্রান্স ও ব্রাজিল

ফ্রান্স ও ব্রাজিল

দীর্ঘ চার বছর পর আবারও ঘনিয়ে আসছে বিশ্বকাপ, ইতোমধ্যে শুরু হয়ে গেছে কাউন্ট ডাউনও। শিরোপা প্রত্যাশী দেশগুলো সাজানো শুরু করে দিয়েছে বিশ্বকাপের স্কোয়াডও, স্বপ্ন যে কাতারে ট্রফিটাকে উঁচিয়ে ধরার।

শ্রেষ্ঠত্বের এই লড়াইয়ে শেষ হাসি ফুটবে কাদের মুখে সেই জল্পনা কল্পনা নিয়ে আগাম বার্তা দিচ্ছে ফুটবল বিশেষজ্ঞ থেকে শুরু করে বিভিন্ন ক্রীড়া মাধ্যমগুলোও। ইএসপিএন থেকে শুরু করে বড় বড় ফুটবল তারকা বাদ যাচ্ছে না কেউই, তবে এবার সেই তালিকায় যুক্ত হয়েছে অপটা স্পোর্টস।

কাতার বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলবে পাঁচবারের বিশ্ব সেরা চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল ও গত বারের বিশ্বকাপ জয়ী ফ্রান্স, সম্ভাবনা নেই আর্জেন্টিনার এমন শিরেনামে চোখ কপালে উঠলেও সম্প্রতি ব্রিটিশ স্পোর্টস অ্যানালিটিক্যাল কোম্পানি এমনটাই মনে করেন। সাম্প্রতিক সময়ের পারফমেন্সের উপর ভিত্তি করে কাতার বিশ্বকাপকে সামনে রেখে রেটিং সিস্টেম তৈরি করেছে অপটা স্পোর্টস। যেটি অপটা স্পোর্টস ডাটা নামেও পরিচিত।

অপটা স্পোটর্সের ডেটায় বর্তমান বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স ও লাতিন আমেরিকার আরেক পরাশক্তি ব্রাজিল সবার থেকে এগিয়ে। অপেক্ষাটা চার মাসের, তারপরই মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কাতারে পর্দা উঠছে ‘দ্য গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ’ বিশ্বকাপ ফুটবল। বিশ্বকাপের সময় যত কাছে আসছে ততই যেনো বাড়ছে উত্তেজনা। কে হবে কাতার বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়ন, তা নিয়ে সংবাদকর্মী থেকে ভক্তদের আগ্রহের কোনো কমতি নেই। 

কোন দল ফেভারিট, কারাই বা জিতবে বিশ্ব ফুটবলের শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট তা নিয়েই চলছে উত্তেজনা। এমন সময়ে ভবিষৎ আশার বানী শোনালো ব্রিটিশ গনমাধ্যম।

তাদের প্রতিবেদনে ১৭.৯৩ পয়েন্ট নিয়ে সবার শীর্ষে থাকবে কিলিয়ান এমবাপ্পের দল ফ্রান্স, অন্যদিকে ব্রাজিলের সম্ভাবনা ১৫.৭৩ পয়েন্ট। 
বিশ্বকাপে তুলনামূলক কঠিন গ্রুপেই পড়েছে সেলেসাওরা, তারপরও গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে সব বাধা অতিক্রম করে ফাইনাল খেলতে বেগ পেতে হবেনা নেইমারের ব্রাজিলের। যদি তাদের এন্যালাইসিস ঠিক প্রমানিত হয় তাহলে ২৪ বছর পর আবারো ফাইনালে মুখামুখি হবে ব্রাজিল ও ফ্রান্স। 

অন্যদিকে উড়তে থাকা আরেক লাতিন আমেরিকার দল আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপ জয়ের আশা দেখছে না ব্রিটিশ এই গণমাধ্যম।

চ্যাম্পিয়ন হওয়ার দৌড়ে মেসির দলের সম্ভাবনা মাত্র ৬.৪৫ শতাংশ। অপরাজিত আর্জেন্টিনার কাতার বিশ্বকাপের রেটিংয়ে পিছিয়ে পড়ে থাকার কারণ, দল হয়ে পারর্ফম না করা। যদিও কোপা আমেরিকার শিরোপা কিংবা লা ফিনালিসিমায় শ্রেষ্ঠত্ব এবং টানা অপরাজেয় থাকার তকমা আশা দেখাচ্ছে আলবিসেলেস্তে সমর্থকদের। মেসির শেষ বিশ্বকাপ, তাই রোটিংয়ে দিকে তাকানোর সুযোগ নেই সমর্থকদের। ম্যারাডোনার মতো মেসির হাতে স্বপ্নের ট্রফিটা দেখতে চায় কোটি সমর্থক। 

তবে আলবিসেলেস্তাদের থেকে এগিয়ে থাকবে স্পেন ও ইংল্যান্ড। বোঝা যাচ্ছে ২০২২ এর আসরে ইউরোপের দলগুলো আধিপত্য দেখাবে। অন্যদিকে আর্জেন্টিনা ভক্তদের মতো স্বপ্ন দেখছে রোনালদোর পর্তুগাল ভক্তরাও। সিআরসেভেন সমর্থকরাও চায় পর্তুগাল বিশ্বকাপ জিতুক। পর্তুগাল যদি গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়, তাহলে তারা লড়বে গ্রুপ ‘জি’-এর রানার্স-আপের বিপক্ষে।

তবে এরপরই কঠিন প্রতিপক্ষ যেমন বেলজিয়াম, জার্মানি এবং স্পেনের মতো দলের মুখোমুখি হতে হবে তাদের। রোনালদোর দিনে প্রতিপক্ষকে নাস্তানাবুদ করতে সক্ষম হবে পুর্তগাল। তবে বিশ্বকাপের জুজু কাটিয়ে উঠে ফ্রান্স পারবে কি গ্রুপ থেকে টপকে যেতে! তাহলেই সকল পরিসংখ্যানের হিসাব মিলবে।

পাঠকের মন্তব্য