বাল্যবিবাহ রোধে বিয়ে বাড়িতে আকস্মিক হাজির ইউএনও 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মমতাজ বেগম

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মমতাজ বেগম

সম্প্রতি পাইকগাছা উপজেলায় বাল্যবিবাহ প্রদানের প্রবণতা বেড়েই চলেছে। এটি বন্ধে, নিরুৎসাহিত করতে ও জনসচেতনা তৈরিতে  উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে নানাবিধ কর্মসূচি সত্ত্বেও কোনভাবেই রোধ করা যাচ্ছে না। বুধবার বিকাল তিনটার দিকে কপিলমুনির বিরাশিতে বিবাহবাড়িতে আকস্মিক হাজির হলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মমতাজ বেগম। 

জানা যায়, বুধবার বিকাল তিনটার সময় উপজেলার কপিলমুনি ইউনিয়নের বিরাশি গ্রামের মোঃ রেজাউল গাজী তার অপ্রাপ্ত বয়স্ক কন্যাকে ডুমুরিয়া উপজেলার মাগুরঘোনা ইউনিয়নের কাঞ্চনপুর গ্রামের মৃত জশোর আলী মোড়ল এর পুত্র মোঃ জাহিদ হোসেনের সাথে আনুষ্ঠানিক ভাবে বাল্য বিয়ের আয়োজন করেন। 

খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মমতাজ বেগম সরেজমিনে গিয়ে উক্ত বাল্য বিয়ে বন্ধ করে দেন। এ সময় মোবাইল কোর্টে তিনি মেয়ের পিতা মোঃ রেজাউল গাজীকে বাল্য বিবাহ নিরোধ আইনে তিন হাজার টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করেন এবং প্রাপ্ত বয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দিবেন না মর্মে মুচলেকা নেন।

অপরদিকে সোমবার রাতে উপজেলার গড়ইখালী ইউনিয়নের বাসাখালী গ্রামের মোঃ আজিজ গাজী তার সপ্তম শ্রেণির পড়ুয়া কন্যাকে পাইকগাছা পৌরসভার শিববাটি গ্রামের মোঃ মজিবর রহমানের পুত্র মোঃ রাজু আহমেদ (২২) এর সাথে বাল্য বিয়ের প্রস্তুতি নিচ্ছে এমন সংবাদ জানতে পারেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার  মমতাজ বেগম। তিনি তাৎক্ষনিক উপজেলা আনসার ও ভিডিপি প্রশিক্ষক সহ সঙ্গীয় ফোর্সদের ঘটনাস্থলে অভিযান পরিচালনার নির্দেশনা দেন।

ভ্রাম্যমান আদলতে মেয়ের পিতাকে তিন হাজার টাকা অর্থদণ্ড ও মেয়েকে প্রাপ্ত বয়স্ক হলে বিবাহ দেওয়ার সত্ত্বে ছেড়ে দেন।
উভয় ঘটনা স্থলে উপজেলা আনসার ও ভিডিপি প্রশিক্ষক মোঃ আলতাফ হোসেন, আনসার কমান্ডার আবু হানিফ, ইউনিয়ন লিডার মোঃ ফয়সাল হোসেন ও ভিডিপি সদস্য মোঃ সামাদ গাজী অভিযানে ছিলেন।

এ প্রতিবেদক কে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট  মমতাজ বেগম জানান, সম্প্রতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে পাইকগাছা উপজেলায় বাল্যবিবাহ প্রদানের প্রবণতা বেড়ে যাচ্ছে। শুধুমাত্র প্রশাসন বা আইন প্রয়োগ কারী সংস্থা দ্বারা সামাজিক এ সমস্যা প্রতিরোধ করা সম্ভব নয়। সমাজ সচেতন পাইকগাছার প্রত্যেক নাগরিককে  এই বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখার আহ্বান জানাচ্ছি।

পাঠকের মন্তব্য