জামালপুরে যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে নির্যাতন 

জামালপুরে যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে নির্যাতন 

জামালপুরে যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে নির্যাতন 

জামালপুর শহরের স্টেশনপাড়া এলকায় ৫ লক্ষ টাকা যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে নির্মম নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে স্বামী মোঃ গোলাম নূরনবী রবিন এর বিরুদ্ধে। মামলা সূত্রে জানা যায়, জামালপুর মৃত ইয়াজলের মেয়ে রিক্তা আকতারের সঙ্গে ৮ মাস আগে জামালপুর স্টেশন পাড়া মোঃ গোলাম মোস্তফার ছেলে গোলাম নূরনবীর বিয়ে হয়।

গোলাম নূরনবী রবিন মেলান্দহ জাহানারা লতিফ মহিলা কলেজ ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি ডিপার্টমেন্টর প্রধান। তার চাকরির প্রমোশনের জন্য ৫ লক্ষ টাকা প্রয়োজন হয়। সেই ৫ লক্ষ টাকা তিনি তার স্ত্রী রিক্তা আক্তার এর কাছে যৌতুক হিসেবে দাবি করেন। এই যৌতুকের টাকা দিতে অপারগতা স্বীকার করলে রিক্তা আক্তার কে নির্যাতন শুরু করেন। 

শুধু তাই  নয়, একাধিকবার তাকে বিষ খাইয়ে হত্যারও চেষ্টা কটে৷ নির্যাতনে অতিষ্ঠ হয়ে রিক্তা আকতার আত্মহত্যারও চেষ্টা করেন। স্বামীসহ শ্বশুরবাড়ির লোকজন তাকে নির্যাতন করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। পরে নানার বাড়িতে রিক্তা আক্তার আশ্রয় নেন। যৌতুন না দিলে তাকে আর ঘরে তোলা হবে না বলেও জানিয়ে দেয়া হয়েছে বলে জানান রিক্তা। এ ঘটনায় নিরুপায় হয়ে জামালপুর আদালতে যৌতুক নিরোধ আইনের ৩ ধারাই সি আর মোকদ্দমা নং ৯৪৪ মামলা দায়ের  করেন রিক্তা আকতার। এখন অসহায় রিক্তা যৌতুকলোভী স্বামীর বিচার চেয়ে দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন।

এই বিষয়ে গোলাম নূরনবী রবিনকে মুঠোফনে কথা বলার চেষ্টা করলে তাকে পাওয়া যায়নি।

পাঠকের মন্তব্য