'পরাজিত বাহিনীর ষড়যন্ত্র কখনো থেমে থাকে না' : জয় 

সজীব ওয়াজেদ জয় 

সজীব ওয়াজেদ জয় 

১৫ই আগস্ট জাতীয় শোক দিবস। মানব সভ্যতার ইতিহাসে ঘৃণ্য ও নৃশংসতম হত্যাকাণ্ডের কালিমালিপ্ত বেদনাবিধূঁর শোকের দিন। ৭৫-এর ১৫ আগস্ট নরপিশাচ রূপি খুনিরা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যা করেই ক্ষান্ত হয়নি, বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার প্রক্রিয়া বন্ধ করতে ঘৃণ্য ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ জারি করে। ১৯৭৫ সালের ১৫ই আগস্ট থেকে দীর্ঘ ২১ বছর বাঙালি জাতি বিচারহীনতার কলঙ্কের বোঝা বহন করতে বাধ্য হয়।

শোকাবহ ১৫ই আগস্টে নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন বাংলাদেশের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছেলে এবং বাংলাদেশের জাতির জনক শেখ মুজিবুর রহমানের দৌহিত্র, আইসিটি পরামর্শক এবং রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব সজীব ওয়াজেদ জয়। এতে তিনি লিখেছেন- পরাজিত বাহিনীর ষড়যন্ত্র কখনো থেমে থাকে না। স্ট্যাটাসটি তুলে ধরা হলো- 
 
'পরাজিত বাহিনীর ষড়যন্ত্র কখনো থেমে থাকে না। পরাজয়ের প্রতিশোধ নিতে তারা ক্রমাগত ষড়যন্ত্রের ফাঁদ পাচ্ছিল। সেই ষড়যন্ত্রকারীরা ১৫ই আগস্ট হত্যাকান্ডের সেই উচ্চাকাঙ্ক্ষী দুর্বৃত্ত সেনা সদস্যদের ব্যবহার করে এমন একটি ষড়যন্ত্র বাস্তবে পরিণত করেছে। তারা ধানমন্ডি ৩২ এর বাড়িতে হামলা চালিয়েছে যা আমাদের স্বাধীনতার প্রজনন স্থান হিসেবেও পরিচিত। তারা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের সবাইকে হত্যা করেছে।

বিশ্ব ও মানব সভ্যতার ইতিহাসে সবচেয়ে নৃশংস সেই হত্যাকান্ডের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুকে শুধু হত্যা করেনি হাজার বছরের প্রতীক্ষিত ও স্বাধীনতার আদর্শকে হত্যা করার চেষ্টা করেছে। তারা বীরত্বের বীরত্বপূর্ণ ব্যালাড মুছে ফেলার অপচেষ্টা করেছিল।

বঙ্গবন্ধুর এই নৃশংস হত্যা সমগ্র বাঙ্গালী জাতির জন্য দুঃখজনক ঘটনা হলেও ঐ হত্যাকান্ডের জন্য অপরাধীদের চেষ্টা না করে দীর্ঘ দিন ধরে তাদের ঢালতে অপমানজনক পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। খুনিদেরও নানাভাবে পুরস্কৃত করা হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর খুনি খন্দকার মুশতাক সরকার কর্তৃক হত্যার বিচার রুখতে কুখ্যাত 'অবিজ্ঞাপন'।

পাঠকের মন্তব্য