যুবলীগ চেয়ারম্যানের আশু আরোগ্য কামনায় দোয়া মাহফিল

যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মোঃ মাইনুল হোসেন খান নিখিল

যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মোঃ মাইনুল হোসেন খান নিখিল

আজ ০১ অক্টোবর, ২০২২ইং, শনিবার, বাদ আসর, ২৩, বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের নিচ তলায় বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের সম্মানিত চেয়ারম্যান, যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, মুজিব বাহিনীর প্রধান শহীদ শেখ ফজলুল হক মণি’র সুযোগ্য সন্তান শেখ ফজলে শামস্ পরশ এর আশু আরোগ্য কামনায় দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। তিনি গত ২৯ সেপ্টেম্বর করোনায় আক্রান্ত হয়ে বর্তমানে ডাক্তারের পরামর্শে নিজ বাসায় আইসোলেশনে আছেন। 

মিলাদ ও দোয়া মাহফিলে যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মোঃ মাইনুল হোসেন খান নিখিল বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের সম্মানিত চেয়ারম্যান, আমাদের প্রিয় নেতা শেখ ফজলে শামস্ পরশ করোনায় আক্রান্ত। আমি তাঁর আশু আরোগ্য কামনায় যুবলীগের সকল স্তরের নেতা-কর্মী ও দেশবাসীর নিকট দোয়া চাই।

তিনি আরও বলেন- রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ পৃথিবীতে অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশের দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। এই অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশে প্রতিবারের ন্যায় এবারও ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা ও ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গোৎসব পালিত হচ্ছে। গত বছরের চেয়েও এবারও সারাদেশে আরও অধিক সংখ্যক পূর্জামণ্ডপে শারদীয় দুর্গোৎসব পালিত হচ্ছে। অসম্প্রদায়িক এই বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী দেশকে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করার জন্য সনাতন ধর্মাবলম্বীদের শারদীয় দুর্গোৎসবে বিশৃঙখলা সৃষ্টি করতে পারে।। এক্ষেত্রে যুবলীগের প্রতিটি নেতা-কর্মী ধর্মীয় সম্প্রীতি বজায় রেখে সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীকে মোকাবিলা করার জন্য প্রয়োজনে মন্দির পাহারায় থাকবে এবং শান্তিপূর্ণভাবে সনাতন ধর্মাবলম্বীরা যাতে শারদীয় দুর্গোৎসব পালন করতে পারে সেটির জন্য যুবলীগের সর্বস্তরের নেতা-কর্মীরা সোচ্চার থাকবে এবং এই উৎসবের সাথে শরীক হবেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন-যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মোঃ হাবিবুর রহমান পবন, মোঃ নবী নেওয়াজ, মোঃ এনামুল হক খান, মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন, তাজউদ্দিন আহমেদ, আনোয়ার হোসেন খান, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক বিশ্বাস মুতিউর রহমান বাদশা, সুব্রত পাল, সাংগঠনিক কাজী মোঃ মাজহারুল ইসলাম, মোঃ সাইফুর রহমান সোহাগ, মোঃ জহির উদ্দিন খসরু, মোঃ সোহেল পারভেজ, আবু মুনির মোঃ শহিদুল হক চৌধুরী রাসেল, মশিউর রহমান চপল, অ্যাড. ড. শামীম আল সাইফুল সোহাগ, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাইন উদ্দিন রানা, উত্তরের সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইসমাইল হোসেন, দক্ষিণের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এইচ এম রেজাউল করিম রেজা, কেন্দ্রীয় যুবলীগের প্রচার সম্পাদক জয়দেব নন্দী, গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক মোঃ জহুরুল ইসলাম মিল্টন, ত্রাণ ও সমাজল্যাণ সম্পাদক সম্পাদক মোঃ সাদ্দাম হোসেন পাভেল, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক মোঃ শামছুল আলম অনিক, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক মীর মোঃ মহিউদ্দিন, পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মোঃ হারিছ মিয়া শেখ সাগর, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক অ্যাড. মোঃ হেমায়েত উদ্দিন মোল্লা, উপ-দপ্তর সম্পাদক মোঃ দেলোয়ার হোসেন শাহজাদা, উপ-শিক্ষা প্রশিক্ষণ ও পাঠাগার বিষয়ক সম্পাদক কাজী খালিদ আল মাহমুদ টুকু, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক মোঃ রাশেদুল হাসান সুপ্ত, উপ-কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক মোল্লা রওশন জামির রানা, উপ-মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক মোঃ গোলাম কিবরিয়া শামীম, উপ-ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হরে কৃষ্ণ বৈদ্য, সহ-সম্পাদক আবির মাহমুদ ইমরান, গোলাম ফেরদৌস ইব্রাহিম, মোঃ মাইদুল ইসলাম, মোঃ আরিফুল ইসলাম, আলমগীর হোসেন শাহ জয়, মোঃ রাশেদুল ইসলাম সাফিন, মোঃ মনিরুজ্জামান পিন্টু, কার্যনির্বাহী সদস্য প্রফেসর মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, কায়কোবাদ ওসমানী, অ্যাড. মোঃ নাজমুল হুদা নাহিদ, মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, অ্যাড. মোঃ গোলাম কিবরিয়া, প্রফেসর ড. মোঃ আরশেদ আলী আশিক, রাজু আহমেদ ভিপি মিরান, গিয়াস উদ্দিন আজম, মোঃ মুজিবুর রহমান, ইঞ্জি. মোঃ মুক্তার হোসেন চৌধুরী কামাল, মানিক লাল ঘোষ, মোঃ নূর হোসেন সৈকত, মোঃ মুজিবুর রহমান মুজিব, মোঃ তারিক আল মামুন, এ বি এম আরিফ, মোঃ ওলিদ হোসেন, মোঃ বজলুর করীম মীর, ডাঃ মোঃ আওরঙ্গজেব আরু, মোঃ আসাদুজ্জামান সুমনসহ কেন্দ্রীয় মহানগর ও বিভিন্ন ওয়ার্ড যুবলীগের নেতৃবৃন্দ।

পাঠকের মন্তব্য